প্রচ্ছদ ক্রিকেট দাবিদাওয়া পূরণ না হওয়া পর্যন্ত সব ক্রিকেট বন্ধ

দাবিদাওয়া পূরণ না হওয়া পর্যন্ত সব ক্রিকেট বন্ধ

শঙ্কায় পড়েছে আসন্ন ভারত সফর ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল)

87
পড়া যাবে: 5 মিনিটে
advertisement

ভারত সফর আসন্ন। কিন্তু তার আগেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে আঘাত হেনেছে বিস্ফোরণ। বেতন-ভাতাসহ নানা অসংগতি নিয়ে বোর্ডের ওপর অসন্তোষ প্রকাশ করে দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন তারা। জাতীয় দল ও অন্যান্য লিগের মুখপাত্র হয়ে এ ঘোষণা দেন টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

advertisement

ঘরোয়া ক্রিকেটে পারিশ্রমিক বাড়ানো, ক্রিকেটারদের প্রতি বোর্ডের দৃষ্টিভঙ্গি বদলানো সহ মোট ১১ দফা দাবিতে ধর্মঘট ডেকেছেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। আজ সোমবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন ডেকে এ ঘোষণা দেন সাকিব। এতে শঙ্কায় পড়েছে আসন্ন ভারত সফর ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল)। অনুর্ধ্ব ১৯ ছাড়া বাকি সব ধরণের ক্রিকেট এর আওতায় থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে সাকিবসহ, তামিম, মাহমুদউল্লাহ, মিরাজ, ইমরুল, সৌম্য, মুশফিক, সাইফউদ্দিন, এনামুল বিজয়, মুমিনুল, মিঠুন, জুনায়েদ সিদ্দিকী, নুরুল হাসান সোহান, রনি তালুকদার, শফিউল ইসলাম, তাসকিন, মোস্তাফিজের মতো প্রথমসারির সব ক্রিকেটারই ছিলেন।

ধর্মঘটের নেতৃত্ব দেন সাকিব আল হাসান। মুখপাত্র হিসেবে তিনি বলেন, ‘দাবিদাওয়া পূরণ না হওয়া পর্যন্ত কোনো ধরনের ক্রিকেট কার্যক্রমে অংশ নেবেন না ক্রিকেটাররা। যেহেতু অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সামনে বিশ্বকাপ আছে, তাই তাদেরকে এই ধর্মঘটের আওতায় রাখা হচ্ছে না।’

আরও পড়ুন:  আগে'র ম্যাচ ভুলে গে'ছিঃ চাহাল

সাকিব বলেন, ‘জাতীয় দল, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটারসহ সবাই এই ধর্মঘটের অন্তর্ভূক্ত এবং সেটা আজ থেকে। জাতীয় লিগ থেকে শুরু করে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট বলেন, জাতীয় দলের প্রস্তুতি বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বলেন সবগুলোই এর অন্তর্ভূক্ত।

আলোচনা সাপেক্ষে অবশ্যই সবকিছুর সমাধান হবে। দাবিগুলো যখন মানা হবে তখন আমরা আমরা স্বাভাবিক কার্যক্রমে ফিরে যাব। আমরাও সবাই চাই ক্রিকেটের উন্নতি হোক। এখানে একটা ক্রিকেটার কেউ তিন-চার বছর খেলবে, কেউ দশ বছর আছে। যারা ভবিষ্যতে আসবে, তাদের জন্য আমরা একটা ভালো পরিবেশ রেখে যেতে চাই যেখান থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট সামনে এগিয়ে যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় অনেক সময়ই এসেছে যে, আমাদের মানটা আসলে কোন পর্যায়ের। ম্যাচে যাওয়ার আগেই অনেক সময় জেনে যায় যে, কোন দল জিতবে আর কোন দল হারবে। এটা আসলে আমাদের জন্য খুবই দুঃখজনক। এই জিনিসগুলো ঠিক করা আসলে খুবই জরুরি বলে আমরা মনে করি।’

আরও পড়ুন:  আইসিসি এবং বিসিবি সমন্বিতভাবে সাকিবকে চাপ দিয়ে সারেন্ডার করেছে

ক্রিকেটারদের এই ঘোষণার পর আগামী ২৪ অক্টোবর শুরু হতে যাওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগের তৃতীয় রাউন্ড এবং ২৫ অক্টোবর শুরু হতে যাওয়া জাতীয় দলের ক্যাম্পও অনিশ্চয়তার মুখে পড়ল। এ ছাড়া ভারত সফর ও বিপিএলও অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে জানেন প্রিমিয়ার লিগের পরিস্থিতি কি। এটা নিয়ে কম বেশি সবাই অসন্তুষ্ট। এখানে পারিশ্রমিকের একটা মানদণ্ড বেঁধে দেয়া হয়েছে। খেলোয়াড়দের অনেক লিমিটেশন দেয়া হয়েছে। আগে যেমন ছিল, তেমনটা নেই। খেলোয়াড়রা আগে বাছাই করতে পারতো, কোন দলে খেলবে, পারিশ্রমিক কেমন হবে। আমাদের দাবি হলো আগের মতো যেন প্রিমিয়ার লিগটা ফিরে পাই।’

নিজেদের এই আন্দোলনে নার‌ী ক্রিকেটারদেরও স্বাগত জানিয়ে সাকিব বলেন, অনেকটা আনসার্টেইন সময়ে এই সম্মেলনটা ডাকা হয়েছে। এ জন্য নার‌ী ক্রিকেটারদের আমরা আমন্ত্রণ জানাতে পারিনি। তবে তারা চাইলে আমাদের সঙ্গে যোগ দিতে পারেন।’

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 174
    Shares
advertisement