প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

না জানিয়ে ক্রিকেটাররা আন্দোলনে কেন?

92
পড়া যাবে: < 1 minute

হঠাৎ উত্তপ্ত ক্রিকেটাঙ্গন। যা সমাধানে পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। আজ (বুধবার) প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গণভবনে গিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সেখানে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন বিসিবি বস। ‘প্রধানমন্ত্রীর দরজা সব সময় খেলোয়াড়দের জন্য খোলা, কেন অবহিত না করে আন্দোলনে গেলেন। পাপনকে এ প্রশ্ন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও ক্রিকেটারদের মধ্যে চলমান দ্বন্দ্ব নিরসনে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে পদক্ষেপ নিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে ডাকা হয় মাশরাফী বিন মুর্তজাকে।

আরও পড়ুন:  ভারত সফরের আগে সাকিবকে কায়দা করে থামিয়ে দেয়া হয়েছে

সেখানে মাশরাফীর কাছ থেকে ক্রিকেটের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে জানেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর মাশরাফীকে ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরার বার্তা দিতে বলেন প্রধানমন্ত্রী। বিসিবির সহসভাপতি মাহবুবুল আনানের বরাতে এ খবর প্রকাশ করেছে একটি জাতীয় দৈনিক।

গত ২১ অক্টোবর, সোমবার সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে ১১ দফা দাবি পেশ করে ধর্মঘটে যান দেশের দেশের প্রথম সারির ক্রিকেটাররা। সেখানে প্রায় সব পরিচিত মুখের উপস্থিতির মধ্যে ছিলেন না কেবল ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফী। যা অনেকের মনেই নানা প্রশ্নের জন্ম দেয়।

এদিকে গতকাল বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ধর্মঘট ডেকে ক্রিকেটকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করাকে ‘ষড়যন্ত্র’ বলে উল্লেখ করেন।

আরও পড়ুন:  আমি এই ছাত্রলীগ দেখতে চাই না,ছাত্রলীগের নাম ভাঙিয়ে এসব করবে মেনে নেওয়া যায় না।

এর আগে সোমবার রাতে ফেসবুক পেজে ধর্মঘট বিষয়ে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেন মাশরাফী। তিনি লেখেন, ‘অনেকেই প্রশ্ন করেছেন যে, দেশের ক্রিকেটের এমন একটি দিনে আমি কেন উপস্থিত ছিলাম না।

আমার মনে হয়, প্রশ্নটি আমাকে না করে, ওদের করাই শ্রেয়। এই উদ্যোগ সম্পর্কে আমি একদমই অবগত ছিলাম না। নিশ্চয়ই বেশ কিছু দিন ধরেই এটি নিয়ে ওদের আলোচনা ছিল, প্রক্রিয়া চলছিল। কিন্তু এ সম্পর্কে আমার কোনো ধারণাই ছিল না।’

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 72
    Shares