প্রচ্ছদ এক্সক্লুসিভ টাকায় নয় ডলারের মাধ্যমে খেলা হতো আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের ক্যা’সিনোতে

টাকায় নয় ডলারের মাধ্যমে খেলা হতো আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের ক্যা’সিনোতে

113
পড়া যাবে: 5 মিনিটে
advertisement

বিতর্কিত চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের গুলশানের বাসায় অভিযান চালিয়ে বিপুল ম’দ ও ক্যা’সিনো’র সরঞ্জাম উদ্ধার করেছেন মা’দকদ্র’ব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা। অভিযানকালে আজিজ মোহাম্মদ ভাই বাসায় না থাকায় তাকে আ’টক করতে পারেনি তারা।

advertisement

রোববার বিকেল ৫টার দিকে গুলশান-২ নম্বর সেকশনের ৫৭ নম্বর সড়কের ১১/এ নম্বর বাসায় এ অভিযান শুরু হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক ফজলুর রহমানের নেতৃত্বে বাসাটিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযান পরিচালনাকারী মা’দকদ্র’ব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, বাসায় ‘হাইপ্রোফাইলড’ ক্যা’সিনো ও বা’রের সন্ধান পাওয়া গেছে। বাসায় বিপুল বিদেশি ম’দের ম’জুদ ছিল। যা সাধারণত কোনো বা’রেও মজুদ থাকে না।

মা’দকদ্র’ব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের উপ-পরিদর্শক মোশারফ হোসেন বলেন, আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের গুলশানের বাসার ছাদে ক্যা’সিনো পাওয়া যায়। এখানে ডলারের মাধ্যমে খেলা হতো।

সম্প্রতি রাজধানীতে যতগুলো ক্যা’সিনোবি’রোধী অ’ভিযান পরিচালনা করা হয়, সেসব জায়গায় দেখা গেছে খেলা হতো টাকা দিয়ে। এখানে এক সেন্ট থেকে শুরু করে ১০০ ডলারের পর্যন্ত কয়েন দিয়ে খেলা হতো।

আরও পড়ুন:  ক্যাসিনো নিয়ে র‌্যাবের সব অভিযান বিষয়ে যা বলল শেখ সেলিম

ক্যা’সিনো সরঞ্জামএতেই বোঝা যায় এখানে খুব হাইপ্রোফাইল মানুষজন খেলতে আসতেন। এছাড়া ক্যা’সিনোটিতে সব ধরনের আধুনিক-সুবিধা রয়েছে এবং সুসজ্জিত। এখানে ম’দ থেকে শুরু করে সী’সা, গাঁ’জা সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা ছিল। অভিযানে জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য নবীন ও পারভেজ নামে ওই বাসার দুই কর্মচারীকে আ’টক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অভিযানকারীরা।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের রহস্যময় ব্যাক্তিদের তালিকা করলে তালিকার প্রথমদিকেই থাকবে যাদের নাম তাদের একজন এই আজিজ মোহাম্মদ ভাই। যাকে নিয়ে আছে নানা গল্প, নানা রহস্য। আর এসব গল্পের বেশিরভাগই চলচ্চিত্র জগতের নারী ও হ’ত্যা কেন্দ্রিক। এসব গল্পের কতটুকু সত্য আর কতটুকু মুখরোচক মিথ্যা সে নিয়েও আছে নানা মত।

বর্তমানে থাইল্যান্ডে বসবাসরত র’হস্যময় এই বাংলাদেশি ব্যবসায়ী হ’ত্যা ও মা’দক পা’চারসহ বেশ কয়েকটি গু’রুতর অ’পরাধে জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ৫০টির মতো চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন:  সাঈদের সম্রাজ্যের দেখভালের দায়িত্ব নিয়েছেন যুবলীগের জামাল ও ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল

১৯৯৬ সালে প্র’তারণার মাধ্যমে শেয়ার বাজার থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ ও আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের বিরুদ্ধে মা’মলা দায়ের করে বিএসইসি। এই শেয়ার কে’লেঙ্কারি’র মা’মলায় গত বছরের ২৯ আগস্ট আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রে’প্তারি প’রোয়ানা (ও’য়ারেন্ট) জা’রি করেন ঢাকার একটি ট্রাইব্যুনাল। এখন তিনি প’লাতক রয়েছেন।

১৯৪৭ এ দেশভাগের পর তাদের পরিবার ভারতের গুজরাট থেকে বাংলাদেশে আসে। ধনাঢ্য এই পরিবার পুরান ঢাকায় বসবাস শুরু করে। ১৯৬২ সালে আজিজ মোহম্মদ ভাইয়ের জন্ম হয় আরমানিটোলায়। আজিজ মোহাম্মদ ভাই তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে ইস্পাত প্রযোজকের পরিচালনায় সক্রিয়ভাবে নিযুক্ত ছিলেন।

তিনি সার্ক চেম্বার অব কমার্সের আজীবন সদস্য। অলিম্পিক ব্যাটারি, অলিম্পিক বলপেন, অলিম্পিক ব্রেড ও বিস্কুট, এমবি ফার্মাসিটিউক্যাল, এমবি ফিল্ম ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানের মালিক আজিজ মোহাম্মদ ভাই।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 219
    Shares
advertisement