প্রচ্ছদ জেলা চট্টগ্রাম আ’লীগের গ্রুপিং প্রকাশ্যে,মহিউদ্দীন চৌধুরীর স্ত্রীকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দিলেন নাছির

চট্টগ্রাম আ’লীগের গ্রুপিং প্রকাশ্যে,মহিউদ্দীন চৌধুরীর স্ত্রীকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দিলেন নাছির

123
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামীলীগের চট্টগ্রাম মহানগরীর  সাবেক সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরীর সহধর্মিণী হাসিনা মহিউদ্দিনকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে  নগর আওয়ামীলীগের  সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বিরুদ্ধে।

রোববার (২৭ অক্টোবর) সকালে নগরীর পাঁচলাইশে দ্যা কিং অফ চিটাগং  কমিউনিটি সেন্টারে আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম জেলার সাংগঠনিক প্রতিনিধি সম্মেলনে এ ঘটনা ঘটে।

মেয়র নাছির ব্যক্তিগত স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য এমন  আচরণ করেছেন বলে দাবি করেন আওয়ামী লীগের একাংশের নেতাকর্মীরা।তাছাড়া মহিউদ্দিন চৌধুরীর সাথে আ জ ম নাছিরের পূর্বেকার দ্বন্দ্বের শোধ নিয়েছেন বলেও অনেকে মনে করেন।

উপস্থিত কয়েক জন নেতা কর্মী  জানান, অনুষ্ঠানের দিন সকাল পৌনে ১১টার দিকে অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন। মঞ্চ থেকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী তাকে মঞ্চে আসার আহবান জানায়।

মঞ্চে এসে উনি(হাসিনা মহিউদ্দিন) অতিথিরদের দ্বিতীয় সারিতে বসেন। মিনিট  বিশেক পর মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন  তাকে  মঞ্চ থেকে নেমে যাবার নির্দেশ দেন।  তখন তিনি মঞ্চ থেকে নেমে যান এবং অনুষ্ঠানের বাকি সময়  মঞ্চের নিচের চেয়ারে বসে থাকেন।

এই ঘটনার জেরে মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, সাবেক সিটি মেয়র প্রয়াত আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কর্মী সমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্র’তিবাদের ঝ’ড় এবং ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি জানিয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে আজ সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের  মহিউদ্দিন গ্রুপের নেতাকর্মীরা নগরীর জিইসি মোড়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে।বিক্ষোবে মেয়ের নাছিরের এহেন কর্মকান্ডে ক্ষোভ প্রকাশ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেন।

আরও পড়ুন:  *দুবাই থেকে আসা যাত্রী ২০টি স্ব'র্ণের বারসহ আটক*

জানা যায়, হাসিনা মহিউদ্দিনকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেওয়ার আগে আবদুচ ছালাম এবং আহমেদুর রহমান সিদ্দিকীকে মেয়র নামিয়ে দিলে তারাও দর্শক সারিতে গিয়ে বসে। তবে কিছুক্ষণ পর দুজনই অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে যান।

নগর আওয়ামী লীগের একাধিক নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, এম এ ছালাম সাহেব মেয়র নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহী। পত্রপত্রিকায় খবর এসেছে হাসিনা মহিউদ্দিনও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইবেন। সম্ভবত সে কারণেই  আ জ ম নাছির উদ্দীন সাহেব তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবছেন।

সম্মেলনের মঞ্চে চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে হাসিনা মহিউদ্দিন বসেছিলেন। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক আ জ ম নাছির উদ্দীন মঞ্চে বসা হাসিনাকে নামিয়ে দেন, যা দেখে মেয়রের কাছে গিয়ে প্রতিবাদ করেন নগর আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর ও নগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু।

মেয়র নাছির বলেন, ‘গত (শনিবার) রাতে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে চট্টগ্রাম উত্তর, দক্ষিণ ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা বসে সিদ্ধান্ত নেন মঞ্চে কারা বসবেন। সিদ্ধান্ত হয়েছে- কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, মন্ত্রিবর্গ, দলের সংসদ সদস্য এবং ৬ জেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ও সকল সহ-সভাপতিবৃন্দ মঞ্চে বসবেন। এর বাইরে সবাই বসবেন মঞ্চের সামনে দর্শকসারিতে। কারা কারা বক্তব্য দেবেন সে বিষয়েও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়।’

আরও পড়ুন:  এবার র‌্যাবের স’ঙ্গে ব’ন্দুকযু’দ্ধে নি’হত হ’ল যুবলীগের সহ-সভাপতি

হাসিনা মহিউদ্দিনের বিষয়ে মেয়র নাছির বলেন, ‘মহিউদ্দিন ভাই আমাদের শ্রদ্ধেয় প্রয়াত নেতা। এখানে মহিউদ্দিন ভাইকে টেনে আনা সমীচীন নয়। অহেতুক খোঁচা দেওয়াও সমীচীন নয়। এটা সাংগঠনিক শৃঙ্খলার বিষয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছেলেমেয়ে আছেন, উনারা কি মঞ্চে গিয়ে বসে থাকেন? ওবায়দুল কাদের ভাই আমাদের দলের সেক্রেটারি, উনারও ভাইবোন আছেন। উনারা কি মঞ্চে গিয়ে বসে থাকেন? আমাদেরও ভাইবোন আছেন, তারা কি মঞ্চে ওঠেন?’

২০১৩ সালে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে সভাপতি এবং আ জ ম নাছির উদ্দীনকে সাধারণ সম্পাদক করে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয় কেন্দ্র থেকে। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে মহিউদ্দিনের মৃ’ত্যুর পর মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। চট্টগ্রামের রাজনীতিতে আশির দশকের মাঝামাঝি থেকে মহিউদ্দিন এবং নাছির পরস্পর বিপরীত মেরুতে ছিলেন। মহিউদ্দিনের মৃ’ত্যুর পরও চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের একাংশ তার অনুসারী পরিচিতি নিয়ে রাজনীতি করছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট:

  • 589
    Shares