প্রচ্ছদ উপজেলা নারী কর্মীকে কো’লে ব’সিয়ে স্প’র্শকা’তর স্থানে হা’ত ,কৃষি কর্মকর্তার ভিডিও ফাঁস

নারী কর্মীকে কো’লে ব’সিয়ে স্প’র্শকা’তর স্থানে হা’ত ,কৃষি কর্মকর্তার ভিডিও ফাঁস

993
পড়া যাবে: 4 মিনিটে
advertisement

নারী সহকর্মীর সাথে জামালপুরের ডিসির আ’পত্তিকর ভিডিও ফাঁ’সের পর যা তোলপাড় সৃষ্টি করেছিল সারা দেশে। এবার নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে এক নারীর আ’পত্তিক’র ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

advertisement

সিটি টিভির ফুটেজে দেখা যায়, গত ৮ অক্টোবর সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন তার রুমে বসে তারই অফিসের নারী পিওনের সাথে কথা বলছেন। এক পর্যায়ে চেয়ার থেকে উঠে গিয়ে জয়নাল আবেদন তার শরীরের স্পর্শকাতর বিভিন্ন স্থানে জোর করে হাত দিচ্ছেন।

ওই নারী কর্মী টেনে তার হাত বের করে দেন। পরে নারী কর্মী বাইরে চলে যান। তিন চার মিনিট পর জয়নাল আবেদীন আবার ওই নারী কর্মীকে ডেকে রুমে নিয়ে আসেন। ডেকে নিয়ে আসার পর জয়নাল আবেদীন চেয়ারে বসে কিছুক্ষণ কথাবার্তা বলেন।

আরও পড়ুন:  ডিবির পরিচয়ে তুলে নিয়ে নৃশংসভাবে তিন বন্ধুকে হত্যা

তারপর ওই নারী কর্মী আবার রুম থেকে বের হয়ে যান। তার দুই মিনিট পর জয়নাল আবেদীনও রুম থেকে বের হয়ে যান। দুই তিন মিনিট পর আবার জয়নাল আবেদীন এবং ওই নারী কর্মী রুমে প্রবেশ করেন। এর পর দেখা যায়, জয়নাল আবেদীন চেয়ারে বসে ওই নারী কর্মীকে হাত ধরে টেনে এনে তার কো’লে ব’সিয়ে স্প’র্শকাত’র স্থানে হা’ত দিচ্ছেন।

অভিযুক্ত জয়নাল আবেদীন বলেন, আমি ভুল করেছি। শ’য়তানের প্র’রোচনায় আমি ভুল করেছি। আমি এ ঘটনার জন্য ক্ষমা প্রার্থী। এ ব্যাপারে মহিলা অফিস পিওন বলেন, জয়নাল সাহেব আমার ঊর্ধ্বতন অফিসার। সে আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে অ’নৈতিক কাজ করেছে। চাকরীর ভয়ে আমি চুপ ছিলাম।

এ বিষয়ে বন্দর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তাহমিনা বেগম জানান, আমি সিসি টিভি ফুটেজ দেখেছি। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার সাথে কথা বলেছি। তার নির্দেশে অ’নৈতিক কর্মকাণ্ডের বিষয়টি জেলা কৃষি কর্মকর্তাকে অবহিত করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:  মায়ের পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা কৃষি কর্মকর্তা কাজী হাবিবুর রহমানের জানান, এরই মধ্যে জয়নালকে বন্দর উপজেলা থেকে বদলি করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। যৌ’ন হ’য়রানি’র শি’কার ওই নারী চাইলে ফৌ’জদারি মা’মলা করতে পারেন।

এ ব্যাপারে বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ বলেন, সরকারি চাকুরীজীবীদের নৈ’তিক স্খলন কোনভাবে মেনে নেয়া যায়না। তিনি বলেন, তার অফিসের নারী পিওন তার কাছে নিরাপদ নয়। তিনি এই কর্মকর্তার দৃষ্টান্তমুলক শা’স্তির দাবি করেন।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 294
    Shares
advertisement