প্রচ্ছদ ক্রিকেট দিবা-রাত্রি টেস্টে’র প্রস্তাব দিয়ে বিপাকে বি’সি’সি’আই

দিবা-রাত্রি টেস্টে’র প্রস্তাব দিয়ে বিপাকে বি’সি’সি’আই

55
পড়া যাবে: < 1 minute
advertisement

বাংলাদেশকে দিবা-রা’ত্রির টেস্ট ম্যাচ খেলার প্রস্তাব দেয় ভারত। ক্রিকেটার-কোচদের সঙ্গে অনেক আলাপ-আলোচনার পর রাজি ‘হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। মঙ্গলবার বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো জানান, দিবা-‘রাত্রির টেস্ট খেলতে প্রস্তুত তাঁরা। কিন্তু দিবা-রাত্রির টেস্ট নিয়ে বাড়তি চিন্তায় পড়তে হচ্ছে বোর্ড অব কন্ট্রোল’ ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়াকে (বিসিসিআই)। মানসম্মত গোলাপি বলের ব্যবস্থা করা নিয়ে বিপাকে পড়েছে বিসিসি’আই।

‘ভারতের কন্ডিশনে গোলাপি বল খুব বেশি টেকসই নয়, সেটা আগেই প্রমাণিত। ২০১৬ সালে দুলিপ ট্রফির ‘ফাইনালটি দিবা-রাত্রির অনুষ্ঠিত হয়। গোলাপি বল দিয়ে ম্যাচ পরিচালনা করে কন্ডিশনের পরীক্ষা করে ভারত। ‘কিন্তু সেই পরীক্ষা খুব একটা সন্তোষজনক ছিল না।

advertisement

‘কারণ মাত্র ২০ ওভার খেলার পরই গোলাপি বল মান হারাতে শুরু করে। নরম হতে থাকে এবং রঙ হারাতে ‘থাকে। শেষ পর্যন্ত ঘরোয়া ক্রিকেটে দিবা-রাত্রির প্রথম শ্রেণির ম্যাচ বন্ধ করতে বাধ্য হয় ভারত। যে কারণে প্র’স্তাবিত বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার দিবা-রাত্রির টেস্টের গোলাপি বল নিয়ে ভাবনায় পড়ে গেছে বিসিসিআইকে।

আরও পড়ুন:  প্রকাশ্যে এল রোহিত শর্মার স্ত্রী’র সঙ্গে আনুশকার দ্বন্দ্ব!

বি’সিসিআইয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘ভারতের মাঠ ইংল্যান্ড বা অস্ট্রেলিয়ার মাঠের মতো মসৃণ নয়। খুবই অমসৃণ হও’য়ার কারণে বল ২০ থেকে ৩০ ওভারের মধ্যে রঙ এবং আকার হারায়।’

ভার’তীয় কন্ডিশনে মানসম্মত গোলাপি বল ব্যবস্থা করা নিয়ে চিন্তা করতে হচ্ছে বিসিসিআইকে। শুধু তাই নয়, ম্যাচে’র মাঝে বল পরিবর্তনের জন্য কিছু ব্যবহৃত বলও মজুদ রাখতে হবে ভারতীয় বোর্ডকে। যা খুবই কঠিন একটি কাজ।’ কারণ গোলাপি বলে টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় না বললেই চলে।

‘দুই দ’লের অনুশীলন এবং ম্যাচের জন্য কমপক্ষে ২৪টি নতুন বল প্রয়োজন। এরপর বল প্রতিস্থাপনের জন্য আপনা’র কাছে কিছু ব্যবহৃত বল থাকতে হবে। এটা সবচেয়ে কঠিন কাজ।’ বলেন বিসিসিআইয়ের এক কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:  শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ দলে চমক ,বাদ পড়লেন-ফিরলেন যারা

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 33
    Shares
advertisement