প্রচ্ছদ শিক্ষাঙ্গন ক্লাস বন্ধ রেখে শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে ২ হাজার ইট সরালেন শিক্ষক!

ক্লাস বন্ধ রেখে শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে ২ হাজার ইট সরালেন শিক্ষক!

59
পড়া যাবে: < 1 minute
advertisement

নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরি স্কুলে শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে শ্রমিকের কাজ করানোর অভিযোগ উঠেছে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। ময়লা পরিষ্কার করার কাজ করানো হয়েছে অর্ধশত শিশু শিক্ষার্থীকে দিয়ে। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবকরা। তবে জেলা প্রশাসক জানিয়েছে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

advertisement

নারায়ণগঞ্জ প্রিপারেটরি স্কুল মাঠে দীর্ঘদিন ধরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে ছিল প্রায় দুই হাজারের মতো ইট। মাঠ পরিচ্ছন্নের উদ্দেশে বুধবার স্কুল চলাকালীন ক্লাস বন্ধ রেখে এ কাজে অর্ধশত শিশু শিক্ষার্থীকে ব্যবহার করেন সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন।

পেশাদার শ্রমিক না এনে দুই হাজারের মতো ইট বহনের কাজটি শিক্ষার্থীদের দিয়ে করানো হয়। সহকারী শিক্ষক শাহীন নিজে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের কাজের তদারকি করেন। এ সময় পাশের বহুতল ভবন থেকে একজন ওই ভিডিও চিত্রটি তার মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ছড়িয়ে দেন।

আরও পড়ুন:  বাড়ির পেছনের পরি*ত্যক্ত জমিতে নিয়ে জো*র করে জামা খো*লার চেষ্টা

কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের দিয়ে শ্রমিকের কাজ করানোর ঘটনায় স্কুল কর্তৃপক্ষের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবকরা।শিক্ষার্থীরা জানান, স্যার বলেছেন কাল খেলা হবে। তাই সবাই মিলে ইটগুলো সরাতে হবে। তাই আমরা কাজটি করেছি।

অভিভাবকরা বলেন, এটা অন্যায় হয়েছে। শারীরিকভাবে বাচ্চাদের ওপর প্রেসার দেয়া হয়েছে।তবে শিক্ষক শাহীনের দাবি, শিক্ষার্থীরা স্বতঃপ্রণোদিত হয়েই কাজ করেছে। পাশাপাশি বিষয়টিকে খুব হালকাভাবেই দেখছেন প্রধান শিক্ষক।

সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তফা শাহীন বলেন, আমাদের স্কাউটের সেভেন ইউটের বাচ্চারা স্বেচ্ছায় কাজটি করেছে। এখানে ব্যথা পাওয়ার তো কিছু দেখছি না। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক আব্দুল বারী বলেন, খেলা থাকায় মাঠ পরিষ্কারের জন্য স্কাউট টিম কাজ করেছে।

জেলা প্রশাসনের কোনো কর্মকর্তাই ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি না হলেও জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দিন জানান, দ্রুত বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:  আমি আল্লাহকে ভয় পাই। পরিস্কার কথা, টাকার বিনিময়ে আমি ভোট কিনমু না

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 500
    Shares
advertisement