প্রচ্ছদ শিক্ষাঙ্গন রাজশাহী পলিটেকনিকে অধ্যক্ষকে টেনে-হিঁচড়ে পুকুরে ফেলে দেওয়ার সেই ঘটনায় গ্রে’প্তার ২৫

রাজশাহী পলিটেকনিকে অধ্যক্ষকে টেনে-হিঁচড়ে পুকুরে ফেলে দেওয়ার সেই ঘটনায় গ্রে’প্তার ২৫

90
পড়া যাবে: < 1 minute

রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দীন আহম্মেদকে পুকুরে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ধরতে সাঁ’ড়াশি অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার মধ্যরাত পর্যন্ত এই ঘটনায় ২৫ জনকে গ্রে’প্তার করেছে নগরীর চন্দ্রিমা থানা পুলিশ।পলিটেকনিক ছাত্রাবাসের বিভিন্ন কক্ষ থেকে তাদের গ্রে’প্তার করা হয়। এর আগে শনিবার রাত ৯টার দিকে মা’মলা করেন অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দীন আহম্মেদ। মা’মলায় ৫০ জনকে আ’সামি করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘মা’মলায় ৫০ আ’সামির মধ্যে আটজনের নাম উল্লেখ করেছেন অধ্যক্ষ।’

মা’মলায় যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে তারা হলেন, কম্পিউটার বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র ও শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন সৌরভ, ইলেক্ট্রনিক্স পঞ্চম পর্বের শিক্ষার্থী মুরাদ, পাওয়ার বিভাগের সাবেক ছাত্র শান্ত, ইলেক্ট্রনিক্স বিভাগের সাবেক ছাত্র বনি, মেকাটনিক্স বিভাগের সাবেক ছাত্র হাসিবুল ইসলাম শান্ত, ইলেক্ট্রো-মেডিকেল বিভাগের সাবেক ছাত্র সালমান টনি, একই বিভাগের সপ্তম পর্বের ছাত্র হাবিবুল ও কম্পিউটার বিভাগের সাবেক ছাত্র মারুফ।

আরও পড়ুন:  রাজশাহীতে এক বাড়িতেই মিললো ৩০০ বস্তা পেঁয়াজ

রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষকদের দাবি, অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় জড়িতরা সবাই ছাত্রলীগের নেতাকর্মী। ঘটনার সময় তাদের কয়েকজনের মুখ রোমালে বাঁধা ছিল। আজ রোববারের মধ্যে আ’সামিদের গ্রে’প্তার করা না হলে লাগাতার কর্মসূচিতে যাবেন বলে জানান শিক্ষকরা। পরিস্থিতি সামাল দিতে ইন্সটিটিউটে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, ‘ক্লাসে উপস্থিতি কম থাকায় দুই ছাত্রের ফরম পূরণে অনুমতি দেয়নি কর্তৃপক্ষ। সকালে ছাত্রলীগ কর্মীরা ওই দুই ছাত্রের ফরম পূরণ করানোর জন্য তার অফিসে যায়। তিনি এ বিষয়ে বিভাগীয় প্রধানের কাছে যেতে বললে অ’শালীন ম’ন্তব্য করে বের হয়ে যায় ছাত্রলীগ কর্মীরা। পরে নামাজ শেষে অফিসে আসার সময় কম্পিউটার বিভাগের সপ্তম পর্বের শিক্ষার্থী কামাল হোসেন সৌরভ সহ সংঘবদ্ধরা পথ আ’টকে তাকে পুকুরের পানিতে নিক্ষেপ করে।’ সাঁতার জানার কারণে তিনি এ যাত্রায় প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন বলেও দাবি করেন তিনি। এদিকে, অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজিব।

আরও পড়ুন:  ছাত্রলীগ কর্মী ফারুক হ'ত্যাকা'ণ্ডে আদালতে দাঁড়িয়ে যা বলেছেন আল্লামা সাঈদী

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট:

  • 749
    Shares