প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

বিদায়বেলায় কান্নায় ভেঙে পরলেন এসপি হারুন

144
পড়া যাবে: < 1 minute

বহুল আলোচিত নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদকে বৃহস্পতিবার বিদায়ী সংবর্ধনা দেয় জেলা পুলিশ লাইন্স। এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন হারুন। বিদায়ী সংবর্ধনায় হারুন নিজের বক্তেব্যে জানান, স’ন্ত্রাসীদে’র বিরুদ্ধে কাজ করতে গিয়ে সমালোচিত হয়েছি। তবে তদন্তে এটি বের হবে।’

এ সময় সাংবাদিকরা পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যানের কাছে চাঁদা চাওয়ার বিষয়ে প্রশ্ন করলে হারুন বলেন, ‘আমার কোনো সহকর্মীর দিকে কেউ পি’স্তল তা’ক করবে, সেটা তো হতে পারে না। তাই ওই ব্যক্তি কত বড় সম্পদশালী বা শক্তিশালী সেটা আমি দেখিনি। কিন্তু বলা হয়েছে চাঁ’দা দাবি করেছি। মূল বিষয় হলো মা’মলা হয়েছে, পুলিশ রে’ইড দিয়েছে। জি’জ্ঞাসাবাদে’র জন্য তার (শওকত আজিজের) ছেলেকে আনা হয়েছিল, মা স্বেচ্ছায় এসেছে। এগুলো আপনারা জানেন। তবুও বিদায়বেলায় আমি বললাম।’

এসপি হারুন বলেন, এটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। কথায় নয়, মন থেকে যেটা চেয়েছি সেটাই করেছি। নারায়ণগঞ্জে পুলিশের ইমেজ বৃদ্ধি পেয়েছে। আমাদের সহযোগিতা করার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

এ সময় নারায়ণগঞ্জে তার থাকা সময়ে মা’দক, স’ন্ত্রাস, চাঁ’দাবা’জ, ভূ’মিদ’স্যুর বিরুদ্ধে কাজ করেছেন বলে জানান হারুন। তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে দুই হাজার পুলিশ সদস্য কাজ করছেন। কিছু ভুল থাকতেই পারে আমাদের। এরপরও যারা ভুল করেছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর অ্যা’কশন নিয়েছি। স’ন্ত্রাসী ও চাঁ’দাবা’জের পক্ষে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, এমপি-মন্ত্রী কেউ তদবির করেননি। এটা আমাদের ভালো লেগেছে।’ এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন হারুন। তার কান্না দেখে পুলিশের অন্য কর্মকর্তারাও আপ্লুত হয়ে পড়েন।

প্রসঙ্গত, পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ হাশেমের ছেলে শওকত আজিজের স্ত্রী ও পুত্রকে রাজধানীর গুলশান থেকে নারায়ণগঞ্জে তুলে নিয়ে যাওয়ার দুদিনের মাথায় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদকে ব’দলি করা হয়।

এরই মধ্যে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার করা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদের বিষয়ে তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 188
    Shares