প্রচ্ছদ জেলা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভায় মা’রামা’রি;নওফেলের মঞ্চত্যাগ,নেপথ্যে ৪০ নারী

যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভায় মা’রামা’রি;নওফেলের মঞ্চত্যাগ,নেপথ্যে ৪০ নারী

174
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের দুই পক্ষের সংঘ’র্ষে প’ণ্ড হয়ে গেছে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভা। এতে সিটি করপোরেশনের একজন কাউন্সিলরসহ অন্তত ১০ জন আ’হত হয়েছেন। ওই মা’রামা’রি দেখে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বক্তব্য না দিয়ে সভাস্থল ছেড়ে যান।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর লালদীঘি মাঠে ওই সভার আয়োজন করে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ। বিকেল ৪টায় শুরু হওয়া সভায় সভাপতিত্ব করেন নগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু। যুগ্ম আহ্বায়ক দিদারুল আলমের সঞ্চালনায় সভা শুরুর পর যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলতাফ হোসেন বাচ্চু ও সৈয়দ মাহমুদুল হক, নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ ও দেলোয়ার হোসেন খোকা বক্তব্য দেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী যুবলীগের একাধিক নেতাকর্মী জানিয়েছেন, আলতাফ হোসেন বাচ্চু যখন বক্তব্য রাখছিলেন সেই সময়ে নগরীর সিনেমা প্যালেস মোড় থেকে ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোবারক আলীর নেতৃত্বে একটি মিছিল লালদীঘির মাঠে প্রবেশ করে। মিছিলের অগ্রভাগে লাল-সবুজ শাড়িতে সজ্জিত ৪০ জনের একটি নারী দলকে মঞ্চের সামনে পৌঁছে দিতে তৎপর ছিল ওই মিছিলের স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্বে থাকা কয়েকজন যুবলীগকর্মী।

আরও পড়ুন:  অক্টোবর মাসের শেষ দিকে মনোনয়ন দেওয়া হবে

এ সময় মঞ্চের সামনে আগে থেকে অবস্থান নেওয়া নগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও এমইএস কলেজের ভিপি ওয়াসিম উদ্দীনের অনুসারীরা তাদের বাধা দেন। তাদের বক্তব্য ছিল পেছন থেকে হঠাৎ করে কেন সামনের দিকে নারীকর্মীদের এগিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ নিয়ে মোবারক আলীর অনুসারী ও ওয়াসিম উদ্দীনের অনুসারীদের মধ্যে তুমুল হট্টগোল বাঁধে।

একপর্যায়ে মঞ্চে উপস্থিত প্রধান অতিথি শিক্ষা উপমন্ত্রীর সামনেই আগে থেকে মাঠে অবস্থান নেওয়া ওয়াসিমের কর্মীরা মিছিল নিয়ে আসা মোবারকের কর্মীদের ওপর চেয়ার ছুঁ’ড়তে থাকে। মোবারকের কর্মীরাও পাল্টা প্র’তিরোধ গড়ে তুললে উভয়পক্ষের মধ্যে মিনিট দশেকের মত চেয়ার মা’রামা’রি ও পা’থর ছোঁ’ড়াছুঁ’ড়ির ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন:  পদত্যাগ করলেন বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্য নাসির , শিক্ষা উপমন্ত্রী বললেন আপনারা যা বোঝার বুঝে নিন

এ ঘটনায় কাউন্সিলর মোবারকসহ অন্তত ২০ জনের অধিক নেতাকর্মী আ’হত হন। পরে পুলিশ এসে উভয়পক্ষকে ধাওয়া দিয়ে মাঠ থেকে বের করে দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এরই মাঝে মঞ্চে থাকা প্রধান অতিথি শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল সভাস্থল ত্যাগ করেন। অন্যদিকে আলোচনা সভার বিশেষ অতিথি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সভায় আসার জন্য রওনা দিলেও আর আসেননি।

মহানগর যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। জড়িতদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘সভায় দুই পক্ষে চেয়ার ছো’ড়াছু’ড়ি হয়েছে। এটা নিয়ে উ’ত্তেজনা দেখা দিলে আমরা দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি।’

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট:

  • 292
    Shares