প্রচ্ছদ বাংলাদেশ মেয়াদ উত্তীর্ণ ইঞ্জিন দিয়ে চলছে ট্রেন

মেয়াদ উত্তীর্ণ ইঞ্জিন দিয়ে চলছে ট্রেন

47
পড়া যাবে: < 1 minute

অর্ধশত বছরের পুরানো ইঞ্জিন দিয়েই চলছে ট্রেনগুলো। স্বাধীনতার সময় রেল বহরে ইঞ্জিন ছিলো ৪৮৬ টি। বর্তমানে তা কমে দাঁড়িয়েছে ২৭৩টিতে। ইঞ্জিন মেরামতের যন্ত্রাংশও পাওয়া যায় না, ফলে জোড়াতালি দিয়ে চলেছে রক্ষণাবেক্ষণ। জরাজীর্ণ ইঞ্জিনের কারণে বাড়ছে দুর্ঘটনা।

তবে নতুনভাবে ১৪০টি ইঞ্জিন কেনার প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানালেন রেলসচিব। ঢাকা-চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে সপ্তাহের ৬ দিন কয়েক হাজার যাত্রী নিয়ে চলে সুবর্ণ এক্সপ্রেস। আরামদায়ক ও ননস্টপ সার্ভিস হওয়ায় এই রুটে চলাচলকারীদের কাছে এটি জনপ্রিয় একটি ট্রেন।

তবে ভয়াবহ তথ্য হলো এই ট্রেনের ব্রেক কাজ করে না। অনেকদিন আগেই এ ব্যাপারে লিখিতভাবে কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন চালক । এছাড়াও ইঞ্জিনের ইলেকট্রিক ডিভাইসগুলোও কাজ করে না মাঝেমধ্যেই।

কমলাপুর ওয়ার্কশপে গিয়ে দেখা যায়, প্রতিদিন ১৫-২০টি ইঞ্জিন মেরামতের জন্য আনা হয় এখানে। বেশীর ভাগ ইঞ্জিনেরই রয়েছে মারাত্মক ত্রুটি।

স্বাধীনতার সময় বাংলাদেশ রেলওয়েতে ৪৮৬টি ইঞ্জিন থাকলেও, বর্তমানে তা দাঁড়িয়েছে ২৭৩টিতে। মেকানিকরা বলছেন, ইঞ্জিনের মেয়াদকাল ২০ বছর হলেও রেল বহরে রয়েছে ৪০, ৫০ এমনকি ৬০ বছরের পুরানো ইঞ্জিন।

পুরানো প্রযুক্তি হওয়ায় মেরামতের যন্ত্রাংশও পাওয়া যায় না এখন, কোনোমতে জোড়াতালি দিয়ে চলছে মেরামত কাজ।

ইঞ্জিন সংকট দূর করতে সম্প্রতি আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন ১৪০ ইঞ্জিন কেনার প্রকল্প নেয়া হয়েছে বলে জানালেন রেলসচিব।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, আধুনিক প্রযুক্তিতে আমরা এখনো পরিচিত হয়নি। আমরা চেষ্টা করছি নতুন যে ইঞ্জিন কেনা হবে তাতে আধুনিক ব্যবস্থা প্রবর্তন করবো।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট:

  • 81
    Shares