প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

শূণ্য ঘরকে বসতঘর দেখিয়ে গণপূর্তের ক্ষতিপূরণ প্রস্তাব!

34
পড়া যাবে: < 1 minute

দরজা-জানালাহীন ঘরে থাকে না কেউ। অথচ, এই ঘরকে পুরনো স্থাপনা ও বসতঘর দেখিয়ে ক্ষতিপূরণের প্রস্তাব দিয়েছে মাদারীপুর জে’লা প্রশাসন ও গণপূর্ত বিভাগ। অ’ভিযোগ উঠেছে, শিবচরে শেখ হাসিনা তাঁতপল্লী নির্মানে জমি অধিগ্রহনে দালালদের সাথে হাত মিলিয়েছে সরকারি ক’র্তারা।

প্রশাসনের ত’দন্তে এমনটাই উঠে এসেছে।মাদারীপুরের কুতুবপুর ও শরিয়তপুরের নাওডোবায় তাঁতপল্লীর জন্য একটি বিশেষায়িত অঞ্চল গড়ে তুলতে ১২০ একর জমি অধিগ্রহণ করে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে প্রকল্পটি প্রস্তাবনার পর থেকে বিশাল এই এলাকায় রাতারাতি শুরু হয় স্থাপনা নির্মাণ।

রাতের আধারে নির্মিত এসব শূণ্য ঘরে কেউ না থাকলেও, স্থাপনা দেখিয়ে ক্ষতিপূরণ হাতিয়ে নেয়ার পায়তারায় আছে একটি চক্র। স্থানীয়রা বলছে, গাছপালা লাগানো হচ্ছে, পুকুর কা’টা হচ্ছে একের পর এক। শিবচর উপজে’লায় প্রথম ধাপে ২৭টি পরিবারের নামসহ ক্ষতিগ্রস্তের তালিকা তৈরি করে করে মাদারীপুর জে’লা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ শাখা। পরে এই পরিবারগুলোকে বাবদ ৩ কোটি ৫ লাখেরও বেশি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার প্রস্তাব করে গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশল বিভাগ।এতে ক্ষোভ জানান স্থানীয় সংসদ সদস্য।

আরও পড়ুন:  মহিলা মাদ্রাসার রান্নাঘরে ছাত্রীকে ধ’র্ষণ করল ম্যানেজার

 এদিকে উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা জানান, ত’দন্তে ভু’য়া বিলের প্রমান মিলেছে। তবে অনিয়মের অ’ভিযোগ অস্বীকার করে অন্যের উপর দায় চাপাচ্ছে গণপূর্ত বিভাগ। মূল কাজ শুরুর আগেই এ প্রকল্পে দফায় দফায় অনিয়মের অ’ভিযোগ ওঠায় ক্ষুব্ধ পদ্মা পাড়ের উন্নয়ন প্রত্যাশীরা।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 106
    Shares