প্রচ্ছদ ভিন্ন স্বাদের খবর

মাছ ধরতে গেলে মৎস্যজীবীরা এই কারণেই কন্ডোম সঙ্গে রাখেন

258
মাছ ধরতে গেলে মৎস্যজীবীরা কন্ডোম সঙ্গে রাখেন
ছবিঃ প্রতীকী
পড়া যাবে: < 1 minute

কন্ডোম। যৌন সুরক্ষার ক্ষেত্রে এর গ্রহণযোগ্যতা বিশ্বে সর্বাধিক। কিন্তু কেনিয়ার মৎস্যজীবীরা যখন মাছ ধরতে যান, তখন তাঁদের সঙ্গে অবধারিত ভাবে থাকে কন্ডোম। কিন্তু তা মোটেই এর প্রচলিত ব্যবহারের জন্য নয়। কন্ডোমের যে ব্যবহার তাঁরা করেন, তা সত্যিই চমকপ্রদ।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত একটি ডকুমেন্টরি থেকে জানা যাচ্ছে, কেনিয়ার বন্দর শহর মোম্বাসার মৎস্যজীবীরা কন্ডোম সঙ্গে রাখেন মাছ ধরতে গেলে। প্রথমেই কন্ডোমটি নিজেদের পোকেনিয়াশাকের সঙ্গে ঘষে নেন তাঁরা। যাতে কন্ডোমের পিচ্ছিল পদার্থটি পুরো উঠে যায়। উদ্দেশ্য, কন্ডোমটি শুকনো হয়ে যায়। সেই শুকনো কন্ডোমে নিজেদের মোবাইল ফোনটি ঢুকিয়ে গিঁট বেঁধে রাখেন তাঁরা। এর ফলে ফোনটি জলের হাত সুরক্ষিত হয়ে যায়।

আরও পড়ুন:  ইসলাম গ্রহণ করে গির্জাকে মসজিদ বানালেন খ্রিস্টান পাদ্রি

আসলে গভীর সমুদ্রে নৌকা উলটে গেলে সেই জলে গরিব মৎস্যজীবীদের মোবাইলে জল ঢুকে যায়। তার হাত থেকে বাঁচতেই এমন অমোঘ ব্যবহার।

তবে এতে উপকার যেমন হয়, তেমনই এক অদ্ভুত ঝামেলায় তাঁদের পড়তে হয়। অনেক সময়ই তাঁদের পকেট থেকে কন্ডোম পেলে স্ত্রীরা সন্দেহ করেন, তাঁরা ওই কন্ডোম দিয়ে কারও সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করছেন।

অন্যান্য খবর

মাছ ধরে বাড়ি ফিরে কারোকে কারোকে এই পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। তখন সেটা সামলাতে তাঁদের সামান্য সমস্যায় পড়তে হয়। তবে ফোনকে জলের হাত বাঁচাতে সেইটুকু ঝুঁকি নিতে রাজি কেনিয়ার দরিদ্র মৎস্যজীবীরা।

আরও পড়ুন:  ইসলাম গ্রহণ করে গির্জাকে মসজিদ বানালেন খ্রিস্টান পাদ্রি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি