প্রচ্ছদ খেলা ফুটবল

আজ রোনালদোর ৩৫তম জন্মদিন

26
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

সাল ২০০২, পর্তুগালের সবুজ গালিচায় ১৬ বছরের এক তরুণ পায়ে বল নিয়ে বিশ্ব ফুটবলে নিজের প্রথম পরিচয় স্থা’পন করে। মাঠে তার গতি আর শৈল্পিক ফুটবল তৎকালীন ম্যান’চেস্টার ইউনাইটেড কোচ স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনকে তার প্রেমে ফেলে দেয়। বি’পক্ষ কোনো দলের খেলো’য়াড়ের প্রতি এমন মুগ্ধতা যেন ফুটবল ইতি’হাসে বিরল। ফার্গুসন যেন মনে মনে ঠাঁই নিলেন একে যেকোনো মূল্যে দলে চাই। ব্যাস যেমন কথা তেমন কাজ। ১২ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে পর্তু’গাল থেকে উঠিয়ে আনলেন এক হীরক খণ্ড। নাম ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো দস সান্তোস অ্যাভেইরো। সেখান থেকে শুরু বিশ্ব ফুট’বলের পরিবর্তন। ফার্গুসন হয়তো সেদিন নিজেও জানতেন না, তিনি যে হীরক খণ্ডে হাত দিয়েছেন, তা একদিন পুরো বিশ্ব ফুটবল শা’সন করবে! রোনালদোর জন্ম ১৯৮৫-এ, পর্তুগালের মাদেইরা শহরে। মা-বাবা নাম রেখেছিলেন তত্কালীন মার্কিন প্রে’সিডেন্ট রোনাল্ড রিগানের সঙ্গে মিল রেখে।

ছোটবেলায় ছিলেন অত্যন্ত গোবেচারা, নি’রীহ প্রকৃতির। শৈশবে সম’বয়সী নয়, খেলতে পছন্দ করতেন বড়দের সঙ্গে। মা না ডাকা পর্যন্ত ফুটবল নিয়েই মেতে থাকতেন খেলার মাঠে। বড়দের সঙ্গে খেলার সময় অনেক বেশ লাথি খেতে হতো। তবুও হতোদ্যম হতেন না। ছোটবেলা থেকেই অনুভব করতেন ফুট’বলার হতে হবে। ফুটবলার হওয়ার তীব্র আ’কাঙ্ক্ষা নিয়েই মাত্র ১২ বছর বয়সে খেলা শুরু করেন স্পোর্টিং দ্য লিসবোয়াতে। একপর্যায়ে মাদেইরা থেকে পরিবার-পরিজন ছেড়ে চলে আসেন। এর’পর কেবলই এগিয়ে চলার গল্প। আক্ষরিক অর্থে ক্লাব ক্যারিয়ার শুরু স্পোর্টিং ক্লাব ডি ফুটবল পর্তুগালে। ২০০৩-এ যোগ দিলেন ম্যানচেস্টার ইউ’নাইটেডে। সেখানে ছয় বছর কাটিয়ে ২০০৯-এ গায়ে চাপালেন রিয়াল মাদ্রিদের জার্সি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ২৯২ ম্যাচ খেলে গোল করেন ১১৮ টি। নিজের জাত চে’নাতে তখনও মেলা দেরি।

চলে এলেন বিশ্বের সেরা ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে। রে’কর্ড অর্থের বিনিময়ে রিয়ালে যোগ দিয়ে শুরু নেমে পড়েন নিজের জাত চেনানোর মিশনে। নিজের ঝুলিতে ভরা শুরু করে একে একে অসংখ্য সাফল্য। গড়তে শুরু করেন অজস্র রেকর্ড। ই’তিহাসের পাতা ওলট পালট করে নিজেকে নিয়ে যান সর্ব’কালের সেরা’দের কাতারে। ক্লাবকে এনে দেন সকল শিরোপা। তার অন’বদ্য অবদানে ক্লাব পায় শত বছরের সেরা ক্লাবের খেতাব। ২০০৯ থেকে ২০১৮, ৯ বছর ৯ দিন রিয়ালে থাকার পর নতুন চ্যালেঞ্জ গ্রহণের স্বাদ জাগে। এটাই তো রোনালদো। যিনি চ্যালেঞ্জ নিতে ভালো’বাসেন। যার কাছে বয়স শুধু একটা সংখ্যা। ২০১৮ সাল পর্যন্ত রাজা হয়ে ছিলেন স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদে। কিন্তু লাখো মাদ্রি’দিস্তাকে কাঁদিয়ে হঠাৎ ২০১৮ সালে যোগ দেন ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসে। রিয়ালের হয়ে ৪৫১ গোল করে ক্লাবের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে ক্যারিয়ার শেষ করা রোনালদো জুভেন্টাসেও ইতি’মধ্যে দুবছর পার করে ফেলেছেন।

ক্যারিয়ারের শেষ বয়সে এসেও যেন একটুও ধার কমেনি তার। নিজের মধ্য থেকে সেরাটা বের করে আনা যেন তিনি নেশায় পরিণত করেছেন। এই সেদিন জুভেন্টাসের হয়ে ৫০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন। যা ইতালির ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুত’তম হাফসেঞ্চুরি! আজ ৫-ই ফেব্রুয়ারি, রোনালদোর ৩৫তম জন্মদিন। তিনি পর্তু’গালের স্বপ্নের পুরুষ। তার হাত ধরেই পর্তুগাল পেয়েছে প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা। তিনি শুধু একজন খেলোয়াড় নন, তিনি সর্বকালের সেরা অধিনায়কও বটে। শুভ জন্ম’দিন রোনালদো। ফুটবল দুনিয়ার কোটি মানুষ আজও তোমার দিকে তাকিয়ে থাকে, তুমি মাঠে নামবে, গোল করবে আর তাদের আনন্দে ভাসাবে বলে। আরও হাজার বছর বেঁচে থাক ফুটবলের মহাযোদ্ধা, প্রতিটি ফুটবল ভক্তের কা’মনা।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 15
    Shares