প্রচ্ছদ বিশ্ব সংবাদ

মায়ের সহায়তায় দিনের পর দিন ধর্ষণের শিকার মেয়ে

1011
পড়া যাবে: < 1 minute

প্রেমিককে দিয়ে প্রায় এক বছর ধরে নি’জের মেয়েকে ধর্ষণ করিয়েছেন মা। ধর্ষণের জেরে গর্ভ’বতী হয়ে পড়েছে ১৪ বছরের সেই নাবালিকা। বর্তমানে সে আট মাসের গর্ভ’বতী। মা ও মায়ের প্রেমিকের বিরুদ্ধে থা’নায় অভি’যোগ দায়ের করেছে সে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ভারতের দক্ষিণ বেঙ্গালুরুর শহর’তলিতে মায়ের সঙ্গেই থাকত ওই নাবালিকা। তার মায়ের সঙ্গে প্রায়শ’ই তাদের বাড়ি আসত মায়ের প্রেমিক বিনয়। ২২ বছরের বিনয় পেশায় অটো’চালক। ডাকাতির মামলায়ও সে অভিযুক্ত। নাবালিকার মা একটি অনু’ষ্ঠান বাড়িতে কাজ করেন। গত দশ বছর ধরে স্বামী’কে ছেড়ে মেয়েকে নিয়ে থাকেন তিনি। সপ্তম শ্রেণির পর পড়া ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় ওই নাবালিকা।

আরও পড়ুন:  আবারো ভেঙে পড়েছে ভারতীয় যুদ্ধবিমান

নির্যাতিতা পুলিশকে জানিয়েছে, বিনয় ও তার মা বাড়িতে এক সঙ্গে মদ্য’পান করত। প্রায়শই তার মা তাকে বিনয়ের সঙ্গে রাতে শুতে বাধ্য করত। এ ভাবেই মায়ের সহায়তায় দিনের পর দিন তাকে ধর্ষণ করে বিনয়। বিনয়ের সঙ্গে থাকতে আপত্তি জানালে ওই মহিলা বলতেন বিনয়ের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হবে তার। এ ভাবেই মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। মাকে এ কথা জানালেও তিনি গু’রুত্ব দেননি বলে অভিযোগ নাবালি’কার। হাস’পাতালে না নিয়ে গিয়ে মেয়েকে ওষুধ খেতে বলেন মা। ওই ঘটনার পর বিনয়ও তাদের বাড়ি আসা বন্ধ করে দেয়। এর পর দিদি’মাকে গোটা ঘটনা বলে ওই নাবালিকা।

দিদিমা হাস’পাতালে নিয়ে যেতেই গর্ভ’বস্থার বিষয়টি সামনে আসে। তারপরই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতা নাবালিকা। ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে এক তদন্ত’কারী অফিসার বলেছেন, নির্যাতিতার মা ও বিনয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ডাকাতির মামলায় বিনয় এখন জেলে। জিজ্ঞাসা’বাদের জন্য আমরা তাকে হেফাজতে নেব। সিঁড়ি থেকে হাত-পা ভেঙে যাওয়ায় নির্যাতিতার মা এখন ঘর বন্দি। সে সুস্থ হলেই আমরা গ্রেপ্তার করব। ওই দুই অভি’যুক্তের সম্পর্কের ব্যাপারে আ’মরা জানতে পেরেছি। বিনয়’কে জেরার পরই বিষয়টি পরিষ্কার হবে।

আরও পড়ুন:  ভারত থেকে একজন বাংলাদেশিকেও ফেরত পাঠাতে দেব না

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।