প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

মুক্তিযুদ্ধের সময় ড. কামালের অবস্থান ছিল রহস্যজনক

87
পড়া যাবে: < 1 minute

মুক্তিযুদ্ধ’বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, অনেকে বলেন ড. কামাল হোসেন সং’বিধান প্রণেতা। তিনি আইনমন্ত্রী থাকা’কালীন সংবিধান প্রণীত হয়েছিল। তিনি সে কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন। নিঃসন্দেহে সে কৃতিত্বের অধিকারী তিনি হতেই পারেন। কিন্তু মুক্তি’যুদ্ধের সময় তার অবস্থান রহস্য’জনক ছিল। তিনি বলেন, তার জামাতা ইহুদি। তিনিও সব’সময় বাংলাদেশের বি’রুদ্ধে বিষোদ্গার করে আসছেন। আমার মনে হয় তারা বাংলাদেশের আজ’কের যে সাফল্য সেটাকে মেনে নিতে পারছে না। সোম’বার জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণে আনা ধন্য’বাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে মন্ত্রী এ’সব কথা বলেন।

এর আগে শনি’বার বিএনপির সমাবেশে ড. কামাল হোসেন সর’কারকে সরে যেতে বলেন। সরকার স্বেচ্ছায় বিদায় না নিলে লাথি মেরে ফেলে দেওয়ার কথা বলেন তিনি। এ বিষেয়ে ক্ষোভ প্র’কাশ করে মুক্তিযুদ্ধ’বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, একজন সং’বিধান প্রণেতা নিশ্চয়ই সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারেন। সরকারের পতন দাবি করতে পারেন। এটা তার গণ’তান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু তিনি যে শব্দ’গুলো ব্যবহার করেছেন সেটা আমরা আশা করিনি। যেহেতু তার জ’বাব দেওয়ার সুযোগ সংসদে নেই, তাই নিন্দা জা’নানো ছাড়া আর বেশি কথা বাড়ালাম না।

নোবেল পুর’স্কারের মতো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রচলনের দাবি জানান মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী। একইসঙ্গে ইউনেস্কোতেও বঙ্গ’বন্ধুর নামে পুরস্কার চালুর নামে উদ্যোগ নিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণায়লকে প’রামর্শ দেন। এ সময় তিনি জামায়াতে ইসলামীকে নি’ষিদ্ধ করতে স্বরাষ্ট্র’মন্ত্রণালয়কে উদ্যোগী হওয়ার পরামর্শ দেন। মুক্তিযুদ্ধ’বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ধর্মীয় সভা হওয়া উচিত। কিন্তু ধর্মসভার নামে ইসলামবিরোধী যেসব অপপ্রচার হচ্ছে সেদিকে ধর্ম’মন্ত্রণালয়কে সজাগ থাকতে হবে। অপ’প্রচারকারী তথাকথিত আলেম নাম’ধারীদের তালিকা তৈরি করে বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 29
    Shares