প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট

দেশের ক্রিকেটের স্বার্থেই পরিচর্যায় সর্বোচ্চ সুবিধা দেয়া হবে যুবাদের

27
পড়া যাবে: < 1 minute

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভা’পতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, বিশ্বকাপ’জয়ী অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার’দের জাতীয় দলের জন্য প্রস্তুত করতে প্র’য়োজনীয় যা যা করার তার সবই করব। দুই বছর পরে যেন তারা প্রত্যেকেই আরও পরিণত হয়, জাতীয় দলে ঢোকা তাদের জন্য সহজ হয়। বিশ্ব’কাপ জয়ের পরেই প্রশ্ন উঠেছে, এই ক্রিকেটার’দের নিয়ে এখন কী করবে বিসিবি? তাদেরকে জাতীয় দলের জন্য তৈরি করতে কোন পথে হাঁটবে? ক্রিকেট বিশ্লেষকরা বলছিলেন, দেশের ক্রি’কেটের স্বার্থেই এদের পরি’চর্যা করতে হবে।

সুন্দর প’রিকল্পনা থাকতে হবে। টিম স্পিরিট নষ্ট করে ছেড়ে দেওয়া যাবে না। বাংলা’দেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ’দের সঙ্গে একমত হয়ে একটি পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। বুধ’বার (১২ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর শের-ই-বাংলায় বিশ্বকাজয়ী ক্রিকেটার’দের বরণ শেষে আয়োজিত সংবাদ স’ম্মেলনে বিসিবি সভা’পতি বলেন, এই দলটিকে সম্পূর্ণ ইনট্যাক্ট রাখা হবে অনুর্ধ্ব-২১ দল হিসেবে। তাদের জন্য ভিন্ন ভিন্ন কোচিং স্টাফ এবং সর্বোচ্চ প্র্যাকটিস ফ্যাসি’লিটি নিশ্চিত করা হবে।

আরও পড়ুন:  বিশ্বকাপ জিতে বীরের বেশে দেশে ফিরল বাংলার যুবারা

যত রকমের সর্বোচ্চ সু’যোগ সুবিধা দেয়া যায় তার সবই দেয়া হবে। তিনি আরও বলেন, এই দুই বছর তারা প্রতি মাসে ১ লাখ টাকা করে পাবে। যদি ২ বছর পরে দেখি তখনও ওরা ভালো করছে তাহলে এর মে’য়াদ আরও বাড়তে পারে। যদি দেখা যায় কারো মধ্যে বি’চ্যুতি ঘটেছে বা উন্নতি হচ্ছে না কিংবা তার আগ্রহ কম তাহলে সে চুক্তি থেকে বাদ পড়বে। উ’ল্লেখ্য, কাল বি’কালে দেশের মাটিতে প্রত্যা’বর্তন ঘটেছে বিশ্বকাপ’জয়ী বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার’দের।

বিকাল ৪টা ৫৫ মিনিটে বিশ্’বজয়ী বাংলাদেশ দলকে বহন করা বিমানটি ঢাকার হযরত শাহ’জালাল আন্তর্জাতিক বিমান’বন্দরে এসে অবতরণ করে। তাদের বরণ করে নিতে আগে থেকেই বিমান’বন্দরে উ’পস্থিত ছিলেন সরকারের মন্ত্রী বিসিবির কর্মকর্তা’বৃন্দ, এবং বিপুল সংখ্যক সাং’বাদিক। বিমানবন্দর থেকে সরা’সরি মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নেওয়া হয় ক্রিকেটার’দের। সেখানেও বিপুল সংখ্যক ক্রিকেট’প্রেমী তাদের বরণ করে নেয়।

আরও পড়ুন:  রংপুরে রাস্তার দুই পাশ থেকে ছোঁড়া পুষ্পবৃষ্টিতে ভিজেছেন আকবর

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 73
    Shares