প্রচ্ছদ বিনোদন

আজ হুমায়ুন ফরীদির অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী

64
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

বরেণ্য অভিনয়’শিল্পী হুমায়ুন ফরীদির অষ্টম মৃত্যু’বার্ষিকী আজ বৃহস্পতিবার। ২০১২ সালের এ দিনে রাজ’ধানীর ধানমন্ডিতে নিজ বাসায় মারা যান তিনি। বিভিন্ন সাং’স্কৃতিক সংগঠন নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে এ গুণী অভি’নেতাকে স্মরণ করবে। মঞ্চ, টেলি’ভিশন ও চলচ্চিত্র এই তিন অঙ্গনের জন’প্রিয় অভি’নেতা হুমায়ুন ফরি’দীর জন্ম ১৯৫২ সালের ২৯ মে ঢাকার নারিন্দায়। দুই ভাই, দুই বোনের মধ্যে হুমায়ুন ফরীদি ছিলেন দ্বিতীয়। জাহাঙ্গীর’নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ’নীতি বিভাগে পড়েছেন। ছিলেন নাট্য’চর্চার পুরোধা ব্যক্তিত্ব নাট্যকার সেলিম আল দীনের ঘনিষ্ঠ সহ’যোগী।

১৯৭৬ সালে জাহাঙ্গীর’নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত নাট্য উৎসবের তিনি অন্য’তম সংগঠক ছিলেন। এ উৎসবের মাধ্যমেই তিনি নাট্যা’ঙ্গনে পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন। আশির দশকে ভাঙনের শব্দ শুনি, সং’শপ্তক, কোথাও কেউ নেই টিভি নাটক দিয়ে সাড়া ফেলেন তিনি। বিশ্ব’বিদ্যালয়ে ছাত্রাবস্থাতেই তিনি ঢাকা থিয়েটারের সদস্য’পদ লাভ করেন। ১৯৯০-এর দশকে তিনি চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। সে’খানেও তিনি বিপুল জন’প্রিয়তা পান। বাংলা চল’চ্চিত্রে খল চরিত্রে তিনি যোগ করেছিলেন এক নতুন মাত্রা। সন্ত্রাস ছবির মাধ্যমে খল’নায়ক চরিত্র শুরু হয় তার। তিনি মা’তৃত্ব ছবির জন্য সেরা অভি’নেতা শাখায় জাতীয় চলচ্চিত্র পু’রস্কার পেয়েছেন ২০০৪ সালে।

নিয়’মিত অভিনয়ের পাশা’পাশি হুমায়ুন ফরীদি তেমন একটা লিখতেন না, তবে কিছু টেলি’ফিল্ম, ধারাবাহিক ও এক ঘণ্টার নাটক নির্মাণ করেছেন। দারুণ বুদ্ধি’দীপ্ত এবং রোমান্টিক এই মানুষটি ব্যক্তি’গত জীবনে প্রথমে বেলি ফুলের মালা দিয়ে ফরিদ’পুরের মেয়ে মিনুকে বিয়ে করেন। তখন এই বিয়ে সারাদেশে ব্যাপক আলোড়ন তোলে। এ ঘরে তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে, নাম দেব’যানি। পরে তিনি ঘর বাঁধেন খ্যাতি’মান অভিনেত্রী সু’বর্ণা মুস্তাফার সঙ্গে। কিন্তু ২০০৮ সালে তাদের বি’চ্ছেদ হয়ে যায়।

আ’মাদের সবার প্রিয় অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি চলে গেছেন চেনা, অ’জানা জগতে। যিনি দীর্ঘদিন ধরে অভিনয়’শৈলী প্রদর্শন করে পর্দায় আবিষ্ট করে রেখেছিলেন কোটি কোটি দর্শককে। ফরীদি একজন অনু’করণীয় ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তাকে অনু’করণ করে আনন্দ পাওয়া যেত। একজন মানুষ কতটা উচ্চ’মানের অভিনেতা হলে তাকে অনুসরণ করা যায় ফরীদি ওই উচ্চতার অভি’নেতা ছিলেন। যত’দিন পর্দায় তার অভিনীত চলচ্চিত্র প্র’দর্শিত হবে, তত’দিন দর্শক তাকে মনে রাখবে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম মনে রাখবে তার সৃষ্টিকে। হুমায়ুন ফরীদি আছেন, থাকবেন।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 67
    Shares