প্রচ্ছদ আইন-আদালত

আদালতে আসতে অস্বীকৃতি খালেদা জিয়ার, ওয়ারেন্ট জারি

66
কারাগারে অস্থায়ী আদালতে আসতে অস্বীকৃতি খালেদা জিয়ার, কাস্টোডি ওয়ারেন্ট জারি
ফাইলফটো
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারের অস্থায়ী আদালতে যাননি। তিনি ওই আদালতে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

আজ বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত অস্থায়ী ঢাকার ৫ নং বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান আদালতে যুক্তি উপস্থাপনের দিন ধার্য ছিল। তবে খালেদা জিয়া আদালতে উপস্থিত না হওয়ার কাস্টাডি ওয়ারেন্ট পাঠিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।

এতে লেখা রয়েছে, খালেদা জিয়া আদালতে আসতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। পরে আদালত মামলাটি পরবর্তী শুনানির জন্য আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) দিন ধার্য করেছেন।

এর আগে গত ৫ সেপ্টেম্বর আদালতে ক্ষোভ করে খালেদা জিয়া বলেছিলেন, এই আদালত চলতে পারে না। এখানে ন্যায়বিচার নেই। যত ইচ্ছা সাজা দিতে পারেন। আমি অসুস্থ। আমি বারবার আদালতে আসতে পারব না। আর এভাবে বসে থাকলে আমার পা ফুলে যাবে।

আরও পড়ুন:  অক্টোবরে জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই সংলাপ

এদিকে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী কারাবন্দি দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি এবং কারাগারে আদালত স্থাপনের প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি শুরু করেছে বিএনপি। এরই মধ্যে অনশন কর্মসূচিতে নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছে। রাজধানী ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণ লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়েছে।

পবিত্র কোরআন তেলায়াতের মাধ্যম দিয়ে বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় অনশন কর্মসূচি আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়।

এদিকে অনশন কর্মসূচি সকাল ১০ টায় শুরু হওয়া কথা থাকলেও সকাল ৯টার আগেই ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণে বিএনপি ও দলের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়ো হতে থাকে।

অনশন অনুষ্ঠানে তেলায়াতের পর মোনাজা‌ত করা হয়। এতে দলে প্রধান বেগম খা‌লেদা জিয়ার সুস্থ্য ও মু‌ক্তি এবং তা‌রেক রহমা‌নের দে‌শে ফি‌রি‌য়ে দেয়ার জন্য আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা হয়।

আরও পড়ুন:  জোটের বৈঠকে অংশ নিচ্ছেন না শীর্ষ নেতারা,আরেক দফা ভাঙনের কবলে ২০ দলীয় জোট!

বিএনপির অনশনকে কেন্দ্র করে গতকালকের জাতীয় প্রেসক্লাবের মত আজও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে পুলিশ।

রাজধানী শাহবাগ থেকে মৎস ভবন, কাকরাইল ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশপাশের এলাকায় পোশাক ও সাদা পোশাকধারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। অনশনস্থলের বাহিরে পুলিশের জলকামান ও প্রিজনভ্যান রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি এবং কারাগারে আদালত স্থাপনের প্রতিবাদে সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে বিএনপি।

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি এবং কারাগারে আদালত স্থাপনের প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি
খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি এবং কারাগারে আদালত স্থাপনের প্রতিবাদে অনশন কর্মসূচি

গতকালকের শান্তিপূর্ণ সেই মানববন্ধন থেকে দুই শতাধিক নেতাকর্মীকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। আটক এসব নেতাকর্মীদের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। এরপরও আজকের অনশনে অংশ নিতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসা নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি