প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি

উনি কথায় কথায় ‘জামাত থাকলে আমি নেই‘ জাতীয় কথা বলছেন কেন?

162
উনি কথায় কথায় ‘জামাত থাকলে আমি নেই‘ জাতীয় কথা বলছেন কেন?
ছবি : সংগৃহীত
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতৃত্ব নিয়ে শুরুতেই সংকট সৃষ্টি হয়েছে। যুক্তফ্রন্ট জাতীয় ঐক্যের নেতৃত্ব অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে দিতে চাইছে। যদিও বিকল্পধারার এই নেতা প্রকাশ্যে বলেছেন, তিনি জাতীয় ঐক্যের নেতৃত্ব নিতে চান না। অন্যদিকে গণফোরাম, সুশীল সমাজ এবং বিদেশি দূতাবাসগুলো চাইছে এই জোটের নেতৃত্ব ড. কামাল হোসেনকে দিতে।

কিন্তু যুক্তফ্রন্টের অন্যতম শরিক নাগরিক ঐক্যের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন যে তিনি ড. কামালের নেতৃত্ব মেনে নেবেন না। এদিকে আকস্মিকভাবে বিএনপি মহাসচিবের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফর নিয়ে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় অবিশ্বাস এবং অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।

যুক্তফ্রন্টের একজন নেতা জানিয়েছেন, কাল রাতেও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তিনি জানিয়েছিলেন, দু একদিনের মধ্যেই বৈঠক করতে চান। এর মধ্যে তিনি একবারও বলেননি যে, রাতেই তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফর করবেন। গণফোরামের নেতারাও এই ঘটনায় অবাক হয়েছেন। গণফোরামের একজন নেতা বলেছেন, যাঁদের আপনি বিশ্বাসই করতে পারবেন না, তাঁদের সঙ্গে ঐক্য করবেন কীভাবে?

আরও পড়ুন:  সংবাদপত্রে প্রকাশিত বিএনপির প্রার্থী তালিকা ভুয়া ও সরকারের মনগড়া

জাতীয় ঐক্য গঠনের আগেই প্রস্তাবিত জোটে নানা মেরুকরণ সৃষ্টি হয়েছে। যুক্তফ্রন্টের অন্যতম নেতা মাহি বি. চৌধুরীকে আওয়ামী লীগের এজেন্ট বলেই মনে করা হচ্ছে। মাহির সঙ্গে আওয়ামী লীগের যোগাযোগের খবরও রাজনৈতিক পাড়ায় পাওয়া যায়। আবার যুক্তফ্রন্টের আরেক নেতা মাহমুদুর রহমান মান্নাকে যুক্তফ্রন্টে বিএনপির প্রতিনিধি মনে করা হয়। বিএনপির সঙ্গে ঐক্যের ব্যাপারে তিনিই সবচেয়ে আগ্রহী।

এমনকি জামাতকে নিয়েই তিনি ঐক্যে যেতে আগ্রহী। যুক্তফ্রন্টে বৈঠকে মান্না বেশ জোর দিয়েই বলেছেন, ‘বিএনপিকে আমাদের নিতেই হবে। না হলে আমরা কিছুই করতে পারব না।’ যুক্তফ্রন্টের আরেক শরিক আ. স. ম. আবদুর রব ঐক্য প্রক্রিয়ার অগ্রগতি না হওয়ায় হতাশ হয়ে গুটিয়ে নিয়েছেন। তবে যুক্তফ্রন্টের একাধিক নেতা বলছেন, নেতৃত্বের দৌড়ে পিছিয়ে পড়ে ঐক্যে অরুচি এসেছে রবের।

আরও পড়ুন:  যে সব কারণে এরশাদের মৃ*ত্যুতে এখনই শোক জানাচ্ছে না বিএনপি

আবার জাতীয় ঐক্যে আগ্রহী হলেও ছোট দলের বড় শর্তে বিএনপির নেতারাও প্রকাশ্যে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন। গত মঙ্গলবার প্রেসক্লাবে ড. কামাল হোসেনের সংবাদ সম্মেলন নিয়ে বিএনপি নেতারা উষ্মা প্রকাশ করেছেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেছেন, ‘উনি কথায় কথায় জামাত থাকলে আমি নেই জাতীয় কথা বলছেন কেন? কে বলেছে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় জামাত থাকবে?’

জাতীয় ঐক্য এখনো শুরুই হয়নি এখনই এতে অবিশ্বাস, নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব আর মান অভিমান শুরু হয়েছে। যাত্রার আগেই হোঁচট খাচ্ছে এই ঐক্য প্রক্রিয়া। বিএনপির একজন প্রভাবশালী নেতা বলেছেন, ‘উদ্যোক্তা দুই নেতার দাম্ভিকতায় অঙ্কুরেই বিনষ্ট হতে পারে এই ঐক্য প্রক্রিয়া।’

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি