প্রচ্ছদ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন (সরাসরি)

৯ বার দেখা হয়েছে
বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর অবশেষে বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে মহাকাশে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। যার নাম বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১। ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান নিয়ে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১০ মে) ঘড়ির কাঁটা ৪টা ১২ মিনিটে মহাকাশের দিকে ছুটবে বাংলাদেশের স্বপ্ন।

এই মাহেন্দ্রক্ষণটি দেখতে পারবেন সবাই। দেশের এই ঐতিহাসিক স্বপ্নের সাক্ষী হওয়ার সুযোগ করে দিতে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ সরাসরি দেখার ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এ তথ্য জানিয়েছেন বিটিআরসির মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক জাকির হোসেন খান।

সরাসরি :

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা ১২ মিনিট থেকে ৬টা ২২ মিনিটের মধ্যে (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত ২টা ১২ মিনিট থেকে ৪টা ২২ মিনিট) উপগ্রহটির উৎক্ষেপণ হবে।

বেসরকারি মহাকাশ অনুসন্ধান ও প্রযুক্তি কোম্পানি ‘স্পেসএক্স’ কেনেডি স্পেস সেন্টারের লঞ্চ প্যাড থেকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের সময় ঠিক করেছে বলে সেন্টারের এক বিবৃতিতে বলা হয়।

জানা গেছে, তিন হাজার ৫০০ কেজি ওজনের জিওস্টেশনারি কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ফ্যালকন-৯ কক্ষপথের দিকে ছুটবে কেনেডি স্পেস সেন্টারের ঐতিহাসিক লঞ্চ কমপ্লেক্স ৩৯-এ থেকে, যেখান থেকে ১৯৬৯ সালে চন্দ্রাভিযানে রওনা হয়েছিল অ্যাপোলো-১১।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের ৪০টি ট্রান্সপন্ডার রয়েছে। এর মধ্যে ২০ দেশে ব্যবহারের জন্য এবং ২০টি ভাড়া দিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা আয় সম্ভব।

এ ছাড়া নিজস্ব স্যাটেলাইট থাকায় বৈশ্বিক টেলিযোগাযোগের ক্ষেত্রে পরনির্ভরশীলতার অবসান হবে। টেলিমেডিসিন, ই-লার্নিং, ই-গবেষণা, ভিডিও কনফারেন্স, প্রতিরক্ষা ও দুর্যোগপূর্ণ অবস্থায় জরুরি যোগাযোগের ক্ষেত্রেও ভূমিকা রাখবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১।

বাংলা ম্যাগাজিন /এমএইচপি /এন

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: