প্রচ্ছদ রাজনীতি আওয়ামী লীগ

মন্ত্রী হলেই কি এমন বিড়ম্বনা সইতে হবে?

54
মন্ত্রী হলেই কি এমন বিড়ম্বনা সইতে হবে?
ছবি : সংগৃহীত

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে সিনেমা ‘গাঙচিল’। এটি পরিচালনা করছেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল। বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সিনেমাটির মহরত অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমসহ সিনেমার কলাকুশলীরা।  

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর ‘গাঙচিল’ উপন্যাসে একটি মন্ত্রীর চরিত্র আছে। চরিত্রটার ব্যাপ্তি দুই লাইন। মন্ত্রী একটা টেলিফোন ধরবেন। ধরে বলবেন ‘হ্যা ঠিক আছে’।

বাংলাদেশে যদি ১০ জন সেরা অভিনেতা হিসেব করা হয়। সেখানে অবশ্যই থাকবে আসাদুজ্জামান নূরের নাম। কিন্তু এমন একটি নামকাওয়াস্তে চরিত্রে অভিনয়ের জন্য ওবায়দুল কাদের কীভাবে তাকে প্রস্তাব দিয়েছে? মন্ত্রী হলেই কি এমন বিড়ম্বনা সইতে হবে? আসাদুজ্জামান নূর এই প্রস্তাবে বিব্রত। তিনি হ্যা না কিছুই বলেননি।

হুমায়ূন আহমেদের নাটকে বাকের ভাই চরিত্রে অভিনয় করে তো এদেশের মানুষের হৃদয়ে চিরস্থায়ী জায়গা করে নিয়েছেন আসাদুজ্জামান নূর। জাতীয় পুরস্কার পাওয়া অভিনেতাকে এমন পাসিং টাইপ শর্ট দেয়ার জন্য প্রস্তাব! যাকে শুটিংয়ের ভাষায় অনেকে ‘ঠিকা’ শর্টও বলে থাকেন। যেসব চরিত্র সাধারণত বিনা পয়সায় পাওয়া যায়, পরিচিত ভাই-বন্ধুদের দিয়ে করানো হয়। যেখানে অভিনয় দক্ষতার খুব দরকার হয় না। এটা নিয়ে সংস্কৃতিক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর যেমন বিব্রত তেমনি মন্ত্রীসভায় হাসির উদ্রেক হয়েছে।

হুমায়ূন আহমেদের নাটকে বাকের ভাই চরিত্রে অভিনয় করে তো এদেশের মানুষের হৃদয়ে চিরস্থায়ী জায়গা করে নিয়েছেন আসাদুজ্জামান নূর। হুমায়ূন পুত্র নুহাশ গিয়ে একদিন বললেন,‘ চাচা আপনার অভিনয় করতেই হবে। আমি স্ক্রিপ্ট লিখেছি। আমিই ডিরেকশন দিবো। না করতে পারবেন না, জানি আপনি এখন অভিনয় করেন না। ভীষণ ব্যস্ত আপনার মন্ত্রীত্ব নিয়ে। কিন্তু আমাকে না বলতে পারবেন না।’ নুহাশের আবদার ফেলতে পারেননি আসাদুজ্জামান নূর। প্রিয় পরিচালক ও বন্ধুর ছেলে। এক সময়ের খ্যাতিমান এ অভিনেতা বর্তমানে বাংলাদেশের সংস্কৃতিমন্ত্রী। রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালনের পরও গত বছর নন্দিত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ছেলে নুহাশ হুমায়ূন পরিচালিত একটি নাটকে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

আরও পড়ুন:  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার টিকিট পেলেন না যারা

তারপরে ও আগে বহু স্ক্রিপ্ট জমা পড়ে তার অফিসে। কিন্তু বিনীতভাবে তা ফিরিয়ে দিতে হয়। সময় যেমন হয় না, তেমনি এখনকার পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করেও মজা পান না। আর তিনি এই সিনেমায় এমন ছোট চরিত্র!

১৯৭২ সাল থেকে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে বাংলাদেশের নাট্য আন্দোলনে সক্রিয় আসাদুজ্জামান নূর। মঞ্চে এ পর্যন্ত দলের ১৫টি নাটকে ৬ শতাধিক বারেরও বেশি অভিনয় করেছেন তিনি; নির্দেশনা দিয়েছেন ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’ নাটকটি।

তাঁর অভিনীত টিভিনাটক ‘কোথাও কেউ নেই’ এর ‘বাকের ভাই’,‘এই সব দিনরাত্রি’ র ‘শফিক’,‘অয়োময়’নাটকের ‘ছোট মীর্জা’ , ‘সবুজ ছায়া’ র ‘ডাক্তার’ চরিত্রগুলো দর্শকরা লুফে নেয়।

আসাদুজ্জামান নূর ‘আগুনের পরশমনি’, ‘শঙ্খনীল কারাগার’, ‘চন্দ্রকথা’, ‘দহন’ চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন।

শেয়ার করুন :
  • 13
    Shares

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন

Loading Facebook Comments ...