প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিভাগ

সিলেটে বিভিন্ন থানার ওসি ও পদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যে বদলি আতঙ্ক

36
সিলেটে বিভিন্ন থানার ওসি ও পদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যে বদলি আতঙ্ক
ছবি : সংগৃহীত

ছয়টি থানা নিয়ে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) গঠিত। এক সপ্তাহের ব্যবধানে পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে বদলির আদেশ এসেছে এসএমপির তিন থানার ওসির। এছাড়া তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলির আদেশ দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। এতে করে অন্যান্য থানার ওসি ও পদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যেও বদলি আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে গত ৩০ আগস্ট সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ থানা হিসেবে বিবেচিত কোতোয়ালীর ওসি মোশাররফ হোসেনকে রেলওয়ে পুলিশে বদলির আদেশ দেয়া হয়। একই দিন নগরীর বিমানবন্দর থানার ওসি গৌছুল হোসেনকে টাঙ্গাইল পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে বদলির আদেশ আসে। এর ছয় দিন পর এসএমপির শাহপরান (রহ.) থানার ওসি আখতার হোসেনকে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশে বদলির আদেশ দেয় পুলিশ হেডকোয়ার্টার।

এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার কোতোয়ালী থানার ওসি মোশাররফ বদলি হয়ে নতুন কর্মস্থলে যোগদান করেছেন। কোতোয়ালী থানায় নতুন ওসি হিসেবে মোহাম্মদ সেলিম মিয়া যোগদান করেছেন। এছাড়া বাকি দুই ওসি বদলির আদেশ স্থগিত রাখতে পুলিশ হেডকোয়ার্টারে আবেদন করেছেন।

জানা গেছে, শাহপরান থানার ওসি (তদন্ত) গিয়াস উদ্দিন, এসএমপি হেডকোয়ার্টারে কর্মরত ইন্সপেক্টর মো. মোরছালিন ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ইন্সপেক্টর জি এম হামিদুর রহমানকেও বদলির আদেশ দেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, গত ৩০ জুলাই অনুষ্ঠিত সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনের পর এক মাসের মধ্যে তিন ওসির বদলি নিয়ে সিলেটে চলছে নানা আলোচনা। অনেকে এটাকে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের পরাজয়ের শাস্তি হিসেবেও দেখছেন। সিসিক নির্বাচনে কামরানের পরাজয়ের পর অভিযোগ ওঠে, ‘জয় বাংলা’ স্লোগান ও বুকে নৌকা প্রতীকের ব্যাজ লাগিয়ে কয়েকটি কেন্দ্র দখল করে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দেয়ার। এ কাজে আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতাকর্মী ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সংশ্লিষ্টতারও অভিযোগ ওঠে।

আরও পড়ুন:  বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে চট্টগ্রাম নগরী

এদিকে, এসএমপির শাহপরান থানার ওসি আখতার হোসেনকে ‘বিএনপিপন্থি’ বলে অভিযোগ তুলেছে একটি মহল। গত সিসিক নির্বাচনে শাহপরান থানাধীন ২০, ২১, ২২ ও ২৪নং ওয়ার্ডের প্রায় সবকয়টি কেন্দ্রেই আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামরান বিজয়ী হলেও ওসি আখতারের বিরুদ্ধে নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীর পক্ষাবলম্বনের অভিযোগ তোলার চেষ্টা করছেন কেউ কেউ। ছাত্রাবস্থায় ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন এমন অভিযোগ ওঠলেও তা অস্বীকার করছেন ওসি আখতার। তার দাবি, শাহপরান থানার ওসির দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ঈর্ষণীয় সাফল্য আসায় তাকে নিয়ে একটি স্বার্থান্বেষী মহল অপপ্রচার চালাচ্ছে।

আখতারের ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্টতা থাকার অভিযোগটি অপপ্রচার বলে দাবি করেছেন তার গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মসুদ আহমদ। তিনি বলেন, ‘আমি যখন মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তখন আখতার স্নাতকের ছাত্র। সে ছাত্রজীবনে কখনো বিএনপি বা জামায়াতের ছাত্র সংগঠনের সাথে জড়িত ছিল না। পড়াশোনা শেষ করে সে পুলিশে যোগদান করে। তার পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত।’ একই তথ্য দিয়েছেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদও।

বদলির প্রসঙ্গে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার পরিতোষ ঘোষ বলেন, ‘হেডকোয়ার্টার থেকে ওসিদের বদলির আদেশ এসেছে। তবে নির্দিষ্ট কোন কারণে নয়, রুটিনমাফিক এই বদলির আদেশ এসেছে। আদেশ প্রত্যাহার না হলে তারা যথাসময়ে নতুন কর্মস্থলে যোগদান করতে হবে।’

শেয়ার করুন :
  • 15
    Shares

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন

Loading Facebook Comments ...