প্রচ্ছদ স্বাস্থ্য

যে কারণে প্রতিদিন একটি করে কলা খাবেন

68
যে কারণে প্রতিদিন একটি করে কলা খাবেন
প্রতীকী ছবি

বেশি পরিমাণে ক্যালোরি এবং কার্বোহাইড্রেট থাকার কারণে কলা এড়িয়ে চলেন অনেকেই। কিন্তু এই ফলটির গুণ আসলে বলে শেষ করা যাবে না। স্বাস্থ্য ভালো রাখা এবং ওজন নিয়ন্ত্রণ দুই ক্ষেত্রেই কলা উপকারী। প্রতিদিন কলা খেলে অনেকগুলো পুষ্টি উপাদানও পাবেন বটে।

সাধারণ আকারের একটি কলায় আছে-

১০৫ ক্যালোরি

২৭ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট

১ গ্রাম প্রোটিন

১ গ্রামের কম ফ্যাট

৩ গ্রাম ফাইবার

১৪ গ্রাম চিনি

৪২২ মিগ্রা পটাসিয়াম

৩২ মিগ্রা ম্যাগনেসিয়াম

১০.৩ মিগ্রা ভিটামিন সি

০.৪৩৩ মিগ্রা ভিটামিন বি৬

কলার স্বাস্থ্য উপকারিতা

রক্তচাপ কমায়: কলায় থাকা পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে সাহায্য করে। এই একই কারণে তা হৃদস্বাস্থ্যও ভালো রাখে।

হাড় শক্তিশালী করে: পটাসিয়াম হাড়ের রোগ অস্টিওপোরোসিসের ঝুঁকি কমায়। ম্যাগনেসিয়াম হাড়ের গঠনে সাহায্য করে।

হজমে সাহায্য করে: কলায় থাকা ফাইবার মূলত হজমের উপকারে আসে।

বুদ্ধি বাড়ায়: কলায় থাকা ভিটামিন বি ৬ বয়সের সাথে মস্তিষ্ক দুর্বল হওয়া রোধ করে এবং পিরিয়ডের সময়ে নারীদের মেজাজের অস্থিতিশীলতা কমায়।

কলা নিয়ে অনেকেরই অনেক প্রশ্ন আছে। যেমন-

কয়টা কলা খাওয়া উচিত এবং কিসের সাথে খাওয়া উচিত?

প্রতিদিন একটা কলা খাওয়াই যথেষ্ট। তাহলেই অনেকগুলো স্বাস্থ্য উপকারিতে পাওয়া যায়। দই দিয়ে বা পিনাট বাটার দিয়ে কলা খেতে পারেন, কলা দিয়ে স্মুদি তৈরি করতে পারেন, কলা দিয়ে আইসক্রিম তৈরি করে খেতে পারেন।

আরও পড়ুন:  শিশুকে কফ সিরাপ, প্যারাসিটামল খাওয়াচ্ছেন? সাবধান!

কলায় চিনি অনেক বেশি থাকে, তা কী খাওয়া ঠিক হবে?

কলাতে গড়ে ১৪ গ্রাম চিনি থাকতে পারে। কিন্তু এতে অনেক ভিটামিন, খনিজ ও দরকারি পুষ্টি উপাদান থাকে। এতে ফাইবার বেশি থাকায় এই চিনি রক্তের সাথে মিশতেও পারে না দ্রুত। এ কারণে মিষ্টি পানীয়ের তুলনায় কলায় থাকা চিনি তেমন ক্ষতি করে না।

কলায় ক্যালোরি অনেক বেশি থাকে, তা কী খাওয়া ঠিক হবে?

যে কোনো খাবার অতিরিক্ত খাওয়াই ওজন বাড়াতে পারে। কিন্তু কলায় ক্যালোরি বেশি থাকলেও ফ্যাট থাকে না বললেই চলে। এ কারণে ডায়েটের সময়েও একটি কলা খাওয়া নিরাপদ।

ব্যায়ামের আগে কী কলা খাওয়া যাবে?

কলায় থাকা কার্বোহাইড্রেট খুব সহজেই হজম হয়ে যায়। এ কারণে ব্যায়ামের আগে তা খাওয়া ভালো। কলা হালকা বলে তাতে পেট বেশি ফুলে থাকে না, ব্যায়াম করা সহজ হয়। ব্যায়ামের পরেও কলা খেতে পারেন।

কলার খোসা কি খাওয়া যাবে?

অনেক ডায়েটে দাবি করা হয় কলার খোসা খাওয়া ইনসমনিয়া ও ডিপ্রেশন কমায় এমনকি কোলেস্টেরলও কমাতে পারে। আসলে কিন্তু এর কোনো বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তি নেই।

শেয়ার করুন :
  • 6
    Shares

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন

Loading Facebook Comments ...