প্রচ্ছদ রাজনীতি বিএনপি

সরকারকে হটাতে যে কোন ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত জামায়াত

55
সরকারকে হটাতে যে কোন ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত জামায়াত
ছবি: সংগৃহীত

বর্তমান সরকারকে হটাতে যে কোন ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত জামায়াত। এ জন্য তাদের বাদ দিয়ে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গঠন করলে তাতে অমত করবে না বলে জানিয়েছে দলটি।

বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ।

বৈঠকে জোট নেতারা বলেন, বর্তমান সরকারকে হটাতে বৃহত্তর ঐক্যের বিকল্প নেই। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এ প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে।

এসময় জোটের এক নেতা জামায়াতকে না ছাড়লে বৃহত্তর ঐক্য হবে না-কয়েকটি দলের এমন অবস্থান প্রসঙ্গে জোটের বা জামায়াতের বক্তব্য জানতে চান।

এর জবাবে জামায়াতের প্রতিনিধি আবদুল হালিম বলেন, ‘আমরা চাই যেকোনো মূল্যে বৃহত্তর ঐক্য হোক। আমাদের দলের অবস্থান হচ্ছে- এই সরকারকে দ্রুত হটাতে হবে। কারণ, এরা আমাদের দলের শীর্ষ নেতাদের ফাঁসি দিয়েছে। তাদের হটাতে আমাদের দল যেকোনো সিদ্ধান্ত মেনে নিতে রাজি আছে। এক্ষেত্রে আমাদের কারণে যদি ঐক্য বাধা হয়ে দাঁড়ায় প্রয়োজনে এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে আমাদের রাখবেন না। প্রত্যক্ষভাবে আমরা এ ঐক্যের সঙ্গে থাকবো না। তারপরও ঐক্য হোক।’

বৈঠকে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য, কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তি, আগামী দিনের আন্দোলন ও নির্বাচনসহ সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়। এসব ইস্যুতে জোট নেতাদের মতামত নেওয়া হয়। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, ইসি পুনগর্ঠন, সংসদ ভেঙ্গে দেওয়া, বিএনপি চেয়ারপারসনসহ রাজবন্দীদের মুক্তির দাবিতে জাতীয় ঐক্যের পক্ষে মত দেন তারা।

আরও পড়ুন:  খুলনা এখন আতঙ্কের নগরী

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে জোটের সমন্বয়কারী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, জামায়াতে ইসলামী অধ্যাপক আবদুল হালিম, ইসলামী ঐক্যজোটের এম এ রকীব, খেলাফত মজলিশের আহমেদ আবদুল কাদের, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এনডিপির খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, লেবার পার্টির এক অংশের মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাগপার তাসমিয়া প্রধান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, মুসলিম লীগের এএইচএম কামরুজ্জামান খাঁন, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, ডিএলের সাইফুদ্দিন মনি, ন্যাপের গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, ইসলামিক পার্টির আবুল কাশেম চৌধুরী, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামীর দুই অংশের মাওলানা নুর হোসেন কাশেমী ও মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ আপডেট

শেয়ার করুন :
  • 39
    Shares
Loading...

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন

Loading Facebook Comments ...