প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

*শত প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে এগিয়ে চলছে গ্রামের নারী শিক্ষার্থীরা*

57
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

*ক্রিং ক্রিং সাই’কেলের শব্দে গ্রামের মেঠো’পথ বেয়ে ছুটে চলছে শি’ক্ষার্থীরা। শত প্রতি’বন্ধকতা পেরিয়ে ছেলে’দের সাথে তাল মিলিয়ে এ’গিয়ে চলছে নারী শি’ক্ষার্থীরা। মেয়ে শি’ক্ষার্থীরা সাই’কেল চা’লিয়ে স্কুলে যাচ্ছে। এতে বদলে যাচ্ছে গ্রামের শি’ক্ষার পরি’বেশ। অ’দম্য সাই’কেল বালিকা’দের হাত ধরেই এগিয়ে যাচ্ছে ময়মন’সিংহের ঈশ্বর’গঞ্জ উপ’জেলার তারুন্দিয়া ইউ’নিয়নের সাখুয়া আদর্শ বিদ্যা’নিকেতন উচ্চ বিদ্যা’লয়ের শিক্ষার্থীরা।*

*সাখুয়া আদর্শ বিদ্যা’নিকেতন উচ্চ বিদ্যা’লয়ের সহ’কারী প্রধান শি’ক্ষক হাসিম উদ্দিন বলেন, উপ’জেলা সদর থেকে প্রায় সতেরো কিলো’মিটার দূরে। বিদ্যালয়’টির আশ’পাশের তিন কিলো’মিটারের মধ্যে কোনো স্কুল নেই। ১৯৯০ সালে স্থাপিত ব্রহ্ম’পুত্র নদের কাছা’কাছি বিদ্যালয়’টিতে ঈশ্বর’গঞ্জ ও গৌরী’পুরের প্র’ত্যন্ত গ্রামের অ’ন্তত ৯৫০ শিক্ষার্থীরা পড়া’শোনা করতে আসে। এর মধ্যে বর্ত’মানে ছাত্রীর সং’খ্যাই বেশি। দুই বছর আগেও প্রত্যন্ত গ্রামের শিক্ষালয়’টিতে মেয়ে শি’ক্ষার্থীর সংখ্যা ছেলে’দের তুল’নায় কম ছিল।*

*তিনি আরও বলেন, মেয়ে’কে সাই’কেল দিয়ে বিদ্যা’লয়ে শিক্ষা নিতে পা’ঠাতে উৎ’সাহী হচ্ছেন। এতে পাল্টে যাচ্ছে প্রত্যন্ত গ্রামের না’রী শি’ক্ষার পরি’বেশ। মেয়ে’দের অদম্য ইচ্ছা’শক্তির কাছে হার মেনেছে বিদ্যা’লয়ের দূরত্ব। সমা’জের ভয়, চাপিয়ে দেওয়া প্রথা আর লজ্জা ভেঙে এখন সাই’কেলের প্যাডে’লের মতো এ’গিয়ে যাচ্ছে গ্রামের মেয়ে’রা। এখন গ্রামের অন্তত ৮০ মেয়ে সাই’কেল চালিয়ে তাদের বিদ্যা’লয়ে পাঠ নিতে যায়। এতে রাস্তায় উত্ত্য’ক্তের শি’কার হওয়া থেকে রক্ষা এবং বিদ্যা’লয়ে যাওয়া-আসার সময় কম লাগছে ছাত্রী’দের।*

আরও পড়ুন:  ময়মনসিংহে ঝুলন্ত অবস্থায় নারী পুলিশ সদস্যের লাশ উদ্ধার

*বিদ্যা’লয়ে প্রথম সাই’কেলের আগ’মন ঘ’টায় রওনক জাহান স্মৃতি। সে বর্ত’মানে দশম শ্রেণি’তে পড়ে। বিদ্যা’লয় থেকে দুই কিলো’মিটার দূরের পলাশ’কান্দা গ্রামের স্মৃতি অষ্টম শ্রেণি’তে প্রথম হও’য়ায় উপ’জেলা প্রশা’সন তাকে একটি সাই’কেল উপ’হার দেয়। স্মৃতি জানায়, সাই’কেল পাও’য়ার পর সে চা’লানো শেখে। পরে এক’দিন স্কুলে আসার পর রা’স্তায় নানা ধর’নের মন্তব্য শুনতে হয়। কিন্তু শিক্ষক’রা উৎ’সাহ দেওয়ায় সাই’কেল দিয়েই স্কুলে আসতে শুরু করে সে।*

*কয়েক’জন অভি’ভাবকের সাথে কথা বলে জানা যায়, গ্রামের মানুষ মেয়ে’দের দূরের স্কুলে পা’ঠাতে ভয় কর’তেন। রাস্তায় উ’ত্ত্যক্ত হওয়া বা হেঁটে দীর্ঘ পথ পাড়ি দেওয়ায় মেয়ে’রাও স্কুলে যেতে অ’নীহা প্রকাশ করত। কিন্তু গত দুই বছরে পাল্টে গেছে সেই পরি’বেশ। সাই’কেল চালিয়ে বিদ্যা’লয়ে যাও’য়ার সু’বিধা পাওয়া বিদ্যালয়’টিতে বাড়ছে সাই’কেল বালি’কার সংখ্যাও।*

আরও পড়ুন:  নারীর অংশ গ্রহণ ছাড়া একটি দেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন সম্ভব নয়

*বিদ্যালয়’টির প্র’ধান শি’ক্ষক সালাহ উদ্দিন মাহ’মুদ বলেন, ছাত্রী’দের সাই’কেল চালিয়ে স্কুলে আসার আ’গ্রহ ক্র’মশ বাড়ছে। প্রত্যন্ত গ্রামে সাই’কেলের ব্যব’হার বাড়ায় মেয়ে শিক্ষার্থী’দের পড়া’লেখায় আ’গ্রহ বাড়ছে। উপ’জেলা নির্বাহী কর্ম’কর্তা জাকির হোসেন বলেন, নারী’দের ছাড়া জাতির অগ্র’গতি স’ম্ভব নয়। শি’ক্ষার অগ্রগতিতে সাই’কেল মেয়ে’দের ঝরে পড়া রো’ধে কাজ করছে। পাশা’পাশি মেয়ে’দের শি’ক্ষার হার বেড়ে যাচ্ছে। এছাড়াও মেয়ে’রা শিক্ষায় এগিয়ে যাচ্ছে, এ’টাই তার প্রমাণ। আমি তাদের এই উদ্যোগ’কে স্বাগত জা’নাই।*

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।