প্রচ্ছদ এক্সক্লুসিভ

মাস্ক কে’লেংকারি’র তদন্ত রিপোর্টে গ’ডফা’দারদের নাম নেই

79
মাস্ক কে’লেংকারি’র তদন্ত রিপোর্টে গ’ডফা’দারদের নাম নেই
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

অতিরিক্ত সচিব সাইদুর রহমানকে প্রধান করে এন-৯৫ মাস্ক কে’লেংকা’রি নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি ত’দন্ত রিপোর্ট তৈরি করেছে। সেই তদন্ত রিপোর্টটি স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলামের টেবিলে জমা দেওয়া হয়েছে। তবে এই রিপোর্টের ভবিষ্যত কী, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে।

জানা গেছে যে, ক’রোনা সং’ক্রমণের সময় সরকারি হাসপাতালগুলোকে এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল আব্দুর রাজ্জাকের মালিকানাধীন জেএমআই নামক একটি প্রতিষ্ঠানকে। এই প্রতিষ্ঠানটি এন-৯৫ মাস্ক বলে যা সরবরাহ করেছিল, তা এন-৯৫ নয় বলে মুগদা হাসপাতালের প’ক্ষ থেকে অ’ভিযোগ করা হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে।

এ’রপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এক ভিডিও কনফারেন্সে ব’লেন যে, এন-৯৫ এর নামে যে মাস্ক দে’ওয়া হচ্ছে, সেগুলো আসলে এন-৯৫ কিনা তা দেখা দ’রকার। যারা সাপ্লাই দিচ্ছে তারা সঠিকভাবে দিচ্ছে কিনা সেটাও ত’দন্ত করতে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর এ ধ’রনের বক্তব্যের পর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি ৫ স’দস্যের তদন্ত ক’মিটি গঠন করে। সেই কমিটির প্রধান ছিলেন অতিরিক্ত সচিব সাইদুর রহমান। তিন দিনের মধ্যে ত’দন্ত কমিটির রিপোর্ট প্র’দান করার কথা বলা হয়। তবে এই ত’দন্ত কমিটি গ’ঠিত হওয়ার সাথে সাথে সিএমএসডি’র পরিচালক এই মাস্ক কে’লেংকা’রি নিয়ে আ’ত্মপক্ষ স’মর্থনের সুরে বক্তব্য রাখেন পরপর তিন দিন। এই ব’ক্তব্যে তিনি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেএমআই’কে প্রচ্ছন্নভাবে স’মর্থন দেন। জেএমআই এর পক্ষ থেকে আব্দুর রাজ্জাকও পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তাদের অবস্থান পরিষ্কার করেন।

আরও পড়ুন:  চীনে করোনা ভাইরাসে প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৬১

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, সচিবের কা’ছে যে তদন্তের রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে-

কোনোরকম টেন্ডার ছাড়াই এই মাস্কগুলো সরবরাহ করা হয়েছে।

বাংলাদেশে এন-৯৫ মাস্ক উৎপাদন হয় না।

এন-৯৫ মোড়কে যে মাস্ক সরবরাহ করা হয়েছে সেটা আসলে এন-৯৫ নয়।

এই ঘটনার জন্য দায়ী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

তবে এই ঠি’কাদারি প্রতিষ্ঠান দায়ী হলেও কেন তাদেরকে বি’না টেন্ডারে কাজ দেওয়া হয়েছিল, নেপথ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কে বা কারা জেএমআই’কে পৃ’ষ্ঠপোষকতা করে এবং কেন জেএমআই এ’কচেটিয়াভাবে কাজ করে; এ সমস্ত প্রশ্নের উত্তর তদন্ত ক’মিটির রিপোর্টে নেই বলে জানা গেছে। ত’দন্ত কমিটির একজন কর্মকর্তা বলেছেন, না’নারকম চা’প সত্ত্বেও তারা একটি মোটামুটি নি’রপেক্ষ রি’পোর্ট প্রকাশ করার চেষ্টা করেছেন।

আরও পড়ুন:  সীমান্ত হত্যা বন্ধে একমত বিজিবি-বিএসএফ

উল্লেখ্য যে, এক সময় ইসলামী ছাত্র শিবির করা জেএমআই এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক বিএনপি-জামাত জোট স’রকারের সময় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে এ’কচ্ছত্র ব্যবসা করতেন। বর্তমান সময়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একাধিক ব্য’ক্তির সঙ্গে তার সু’সম্পর্ক র’য়েছে বলে জানা যায়।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 133
    Shares