প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

প্রত্যে’কটি জেলা হাস’পাতালে আই’সি’ইউ ইউনিট স্থাপনের নির্দেশ দিয়ে’ছেন প্রধানমন্ত্রীর

22

পড়া যাবে: 2 মিনিটে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রত্যে’কটি জেলা হাস’পাতালে আই’সি’ইউ ইউনিট স্থাপনের নির্দেশ দিয়ে’ছেন। মঙ্গল’বার একনেক সভায় প্রধান’মন্ত্রী এই নির্দেশ দেন। সভা শেষে পরিকল্পনা’মন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিক’দের এ কথা জানান। করোনা’ভাইরাসের বিস্তার রোধে দুই মাসের বেশি সময়ের সাধারণ ছুটি শেষে মঙ্গলবার সকালে বসে এক’নেকের বৈঠক। ভিডিও কন’ফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে সভা’পতিত্ব করেন প্রধান’মন্ত্রী। এটাই ভিডিও কন’ফারেন্সের মাধ্যমে একনেকের প্রথম সভা। এসময় স্বাস্থ্য’বিধি মেনে অর্থ’নৈতিক কর্ম’কাণ্ড চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান প্রধান’মন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, মানুষ যেন খেয়ে-পরে বাঁচতে পারে, সেজন্যই স্বাভা’বিক জীবন’যাত্রায় ফেরার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সভা’শেষে পরিকল্পনা’মন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিক’দের জানান, বৈঠকে মাননীয় প্রধান’মন্ত্রী প্রত্যেক জেলা সদর হাসপাতালে অবশ্যই একটা করে আইসিইউ ইউনিট স্থাপন করার নির্দেশ দিয়েছেন। ‘প্রধান’মন্ত্রী বলেছেন, প্রত্যেকটা হাস’পাতালে আই’সি’ইউ ইউনিট স্থাপন, প্রত্যেকটি হাস’পাতালে যেন ভেন’টিলেটর স্থাপন, যথেষ্ট পরি’মাণ উচ্চমাত্রার পর্যাপ্ত অক্সি’জেন সর’বরাহ ব্যবস্থা যেন আরও বৃদ্ধি করা হয়’। এ জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্র’পাতি কেনার নির্দেশও প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:  টাইগারদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বৈঠকে কোভিড-১৯ মোকা’বেলায় বিশ্ব ব্যাংক ও এডিবির অর্থায়নে ‍দুটি প্রকল্প একনেকে অনু’মোদন দেওয়া হয় বলে জানান পরিকল্পনা’মন্ত্রী। অনু’মোদন পাওয়া দুই প্রকল্পের একটি হচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাং’কের (এডিবি) অর্থায়নে ‘কোভিড-১৯ রেসপন্স ইমার্জেন্সি অ্যাসিস্ট্যান্স (এডিবি-জিওবি)’ প্রকল্প। মান্নান বলেন, এই প্রকল্পটি’র মাধ্য’মে কো’ভিড-১৯ এবং ভবিষ্যত মহা’মারীর জন্য পিসিআরসহ আধুনিক মাইক্রো-বায়ো’লজিক্যাল ল্যাব’রেটরির স্থাপন করা হবে। রোগীর চিকিৎসা ব্যব’স্থাপনা ও হাস’পাতালের সক্ষমতা বাড়াতে ১৭টি মেডিকেল কলেজ হাস’পাতালে আই’সোলেশন ইউনিট এবং ক্রি’টিক্যাল কেয়ার ইউনিট নিশ্চিত করার পাশা’পাশি প্রয়োজনীয় জন’বল নিয়ে প্রশি’ক্ষণও দেওয়া হবে এই প্রকল্পের আওতায়।

আরও পড়ুন:  ক্রাইম দমনে আরও শক্তিশালী পুলিশ বাহিনী গঠন করা হবে

প্রকল্পটির মাধ্যমে স্বাস্থ্য খাতের তিন হাজার ৫০০ জন ক’র্মীকে আধুনিক দক্ষতা এবং জ্ঞানের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সেই সঙ্গে পিসিআর মেশিন, পিসি’আর ল্যাব, আইসিইউ, পিপিই ও মাস্ক কেনা’র কাজে এই প্রক’ল্পের অর্থ ব্যয় করা হবে। বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে ‘কোভিড-১৯ ইমার্জেন্সি রেসপন্স অ্যান্ড প্যা’ন্ডেমিক প্রিপেয়ার্ডনেস’ প্রকল্পটির আওতায় কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত ও পরীক্ষার জন্য স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ও স্বাস্থ্য’কর্মীদের সক্ষমতা বাড়ানো হবে। জেলা হাস’পাতালে আই’সোলেশন ইউনিট এবং ক্রিটি’ক্যাল কেয়ার ই’উনিট স্থাপনের মাধ্যমে রোগীর চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা সুযোগ বাড়া’নোও এই প্রকল্পের লক্ষ্য। এছাড়াও এ প্রকল্পটির মাধ্যমে সব মেডি’কেল কলেজ হাস’পাতালে সংক্রমক রোগ বিভাগ, জেলা পর্যায়ে এক্সপান্ডেড প্রোগ্রাম ফর ইম্যু’নাইজেশন (ইপিআই) ইউনিট এবং সব সেকেন্ডারি এবং টারশিয়ারি হাসা’পাতালে ইন’ফেকশন প্রিভেনশন ইউনিট স্থাপন করা হবে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 10
    Shares