প্রচ্ছদ Featured News

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে

59
আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে

পড়া যাবে: 2 মিনিটে

আওয়ামী লীগের বেশকিছু অঙ্গসহযোগী সংগঠনের সম্মেলন হয়েছে, সম্মেলনের পর সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নাম-ও ঘোষনা করা হয়েছে। কিন্তু পূর্ণাঙ্গ কমিটি এখন পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়নি। শুধু অঙ্গসহযোগী সংগঠন নয়, ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণেরও সম্মেলন হয়েছে, সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নাম-ও ঘোষনা করা হয়েছে, কিন্তু পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়নি।

আর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়নি বলে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে স্থবিরতা আছে বলে অনেক রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা কম দেখা যাচ্ছে এবং এই সঙ্কটকালে যে দল সাংগঠনিকভাবে ঝাঁপিয়ে পড়তে পারবে, সেই কর্মকাণ্ডেও ভাটার টান লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আর এই বাস্তবতায় দলের শীর্ষ নেতারা, অঙ্গসহযোগী সংগঠন বিশেষ করে ঢাকা মহানগরের কমিটিগুলো ঘোষণার উদ্যোগ নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন যে, কমিটিগুলো করা দরকার খুব শীঘ্রই এবং এই ব্যাপারে তিনি আজকালের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলে নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন যে, করোনা সঙ্কটসহ নানা বাস্তবতার কারণে কমিটি গঠন করা বিলম্বিত হয়েছে।

একই অভিমত ব্যক্ত করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বাহা উদ্দিন নাছিম। তিনি বলেন যে, আওয়ামী লীগ একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক সংগঠন। করোনাকালে আওয়ামী লীগই জনগনের পাশে আছে। তবে তিনি স্বীকার করেন যে, কমিটি গঠন করলে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ বাড়বে এবং করোনা সঙ্কট মোকাবেলায় তা ইতিবাচক ভূমিকা পালন করতে পারে বলে ধারণা করছেন।

আরও পড়ুন:  এবার প্রধানমন্ত্রীকে যে প্রস্তাব দিলেন হিরো আলম

উল্লেখ্য যে, আওয়ামী লীগের অঙ্গসহযোগী সংগঠনের মধ্যে কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সম্মেলনের পর এখন পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়নি। আওয়ামী লীগের একটি সূত্র বলছে যে, কৃষক লীগের একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা গঠন করা হয়েছে এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার অনুমোদনের জন্য সেটা জমা দেওয়া হয়েছে। একইভাবে স্বেচ্ছাসেবক লীগেরও কমিটি তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গেছে। যুবলীগের কমিটি এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত করা হয়নি এবং এই কমিটি চূড়ান্ত করার কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। শেষ হলেই তা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে দেওয়া হবে।

আর অন্য একটি সূত্র বলছে যে, ঢাকা মহানগর উত্তর এবং দক্ষিণের কমিটিও প্রায় চূড়ান্ত বলে জানা গেছে এবং এটা শেষ হলে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে জমা দেওয়া হবে। আওয়ামী লীগের একটি দায়িত্বশীল সূত্র বলছে যে, মুজিববর্ষের শুরুতেই এই কমিটিগুলো ঘোষণার কথা ছিল। কিন্তু করোনা সংকটের কারণে এই ঘোষণা বিলম্বিত হচ্ছে। কারণ এখন যদি কমিটি গঠন করা হয় তাহলে তা জনগনের উপর নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি করতে পারে।

যে যখন দেশ করোনায় আক্রান্ত, তখন আওয়ামী লীগ কমিটি গঠন করছে। এই ধরনের নেতিবাচক ঘটনা যেন না ঘটে তাই কমিটির কার্যক্রম আপাতত বন্ধ রাখা হয়। তবে এখন ২৩শে জুন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগেই কিছু কিছু কমিটির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানা গেছে। আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেছেন যে, সামনের দিনগুলোতে আমাদেরকে করোনার সঙ্গে বসবাস করতে হবে এবং করোনার সঙ্গে বসবাসের যে চ্যালেঞ্জগুলো, সেই চ্যালেঞ্জগুলো শুধু স্বাস্থ্যগত চ্যালেঞ্জ নয়, অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ এবং সামাজিক চ্যালেঞ্জও রয়েছে।

আরও পড়ুন:  গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিটে যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আর এই চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলার জন্য সাংগঠনিক উদ্যোগ দরকার, রাজনৈতিক উদ্যোগ দরকার। আর এইজন্যে এই সময়ে আওয়ামী লীগের কমিটিগুলো ঘোষণা করা দরকার। কারণ সব মানুষ যেন ত্রাণ পায়, কোন মানুষ যেন অনাহারে না থাকে বা মানুষের সমস্যাগুলো যেন দূর হয় এজন্য সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগকেও উদ্যোগ গ্রহণ করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আর এই উদ্যোগ গ্রহণের পাশাপাশি এখন যদি অঙ্গসহযোগী সংগঠনগুলোর যে অনিষ্পন্ন কমিটিগুলো রয়েছে তা গঠন করা হলে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা বাড়বে এবং এতে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবে বলে মনে করছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা বলেছেন যে, দু-একটি ছাড়া প্রায় সবগুলো কমিটি চূড়ান্ত এবং যাচাই বাছাইয়ের পর আওয়ামী লীগ সভাপতির অনুমোদন সাপেক্ষে কমিটিগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হতে পারে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

  • 162
    Shares