প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

বেতন কমছে না যাদের, ঘোষণা দিলো যেসব ব্যাংক

58
বেতন কমছে না যাদের, ঘোষণা দিলো যেসব ব্যাংক
পড়া যাবে: 3 মিনিটে

করোনা পরিস্থিতির কারণে বেসরকারি ব্যাংক মালিকদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) ব্যাংকারদের বেতন কমানোর যে পরাম’র্শ দিয়েছে, সিংহভাগ ব্যাংকই তা অনুসরণ করছে না। তারা বেতন কমানোর পক্ষে নয়।

সূত্র জানায়, ইউসিবি ও এসবিএসি ব্যাংকের পর আরো পাঁচটি বেসরকারি ব্যাংক কর্মক’র্তাদের বেতন না কমানোর ঘোষণা দিয়েছে। এই ব্যাংকগুলো হলো- প্রাইম ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া ও মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক।

এছাড়া ইস্টার্ন ব্যাংক ও এনসিসি ব্যাংকও কর্মক’র্তাদের বেতন কমাবে না বলে আভাস পাওয়া গেছে।

বেসরকারি খাতের সবচেয়ে বড় ব্যাংক ইস’লামী ব্যাংকও কর্মক’র্তাদের বেতন কমানোর বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। বৃহস্পতিবারের পরিচালনা পর্ষদের সভায় বিষয়টি নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। আগামী ২৭ জুনের বোর্ড সভা’র আলোচ্যসূচিতেও এ বিষয়টি রাখা হয়নি।

সম্প্রতি বিএবির পরাম’র্শে এক্সিম ও সিটি ব্যাংক কর্মক’র্তাদের বেতন কমানোর ঘোষণা দিলে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর কর্মক’র্তাদের মধ্যে ক্ষোভ ও উৎকণ্ঠা দেখা দেয়। তবে বৃহস্পতিবার ইউনাইটেড কমা’র্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি) এবং সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমা’র্স (এসবিএসি) ব্যাংক এই মহামা’রীর মধ্যে কর্মক’র্তাদের বেতন না কমানোর ঘোষণা দিলে ব্যাংকারদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসে।

১৯৯৩ সালে নয়টি সদস্য ব্যাংক নিয়ে বিএবির যাত্রা শুরু হয়। ২০০৮ সালের ২১ জানুয়ারি থেকে বিএবির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন নজরুল ইস’লাম মজুম’দার। এই নজরুল ইস’লাম মজুম’দারই বিএবির পক্ষ থেকে সব ব্যাংকের চেয়ারম্যানদের চিঠি দিয়ে আগামী দেড় বছর ব্যাংকারদের বেতন ১৫ শতাংশ হ্রাস, সব ধরনের মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন বন্ধসহ ১৩ দফা পদক্ষেপ নিতে বলেছিলেন।

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম মো. শিরিন শুক্রবার রাতে বলেন, আমাদের ব্যাংকের কর্মক’র্তাদের বেতন কমানোর প্রশ্নই আসে না। কোনো অবস্থাতেই আম’রা এমন অমানবিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব না। যে কর্মক’র্তারা ব্যাংকটিকে এমন ভালো জায়গায় নিয়ে এসেছেন এই মহামা’রীকালে তাদের বেতন কমাব কেন? মহামা’রীর সময়ে ব্যাংকাররা জীবনের ঝুঁ’কি নিয়ে গ্রাহকদের সেবা দিচ্ছেন। সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নের অবদান রাখছেন। এ অবস্থায় তাদের বেতন কমানোর চিন্তা করছি না।

ব্র্যাক ব্যাংকের চেয়ারম্যান আহসান এইচ মনসুরও একই ধরনের কথা বলেন।

তিনি বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে কর্মক’র্তাদের বেতন-ভাতা কমানোর কোনো চিন্তা আম’রা করছি না। এ কথা ঠিক যে এই বছরে ব্যাংকের মুনাফা অনেক কমে যাবে। কিন্তু সেটার কারণে কর্মক’র্তাদের বেতন কমানোর মতো কঠিন সিদ্ধান্ত ব্র্যাক ব্যাংক নেবে না।

প্রাইম ব্যাংকের চেয়ারম্যান তানজিল চৌধুরী বলেন, ব্যাংকের কর্মক’র্তারা হচ্ছেন আমাদের পরিবারের একটি অংশ। এই কঠিন সময়ে তাদের বেতন কমাব কেন? সংকট মোকাবেলার জন্য আম’রা ব্যয় সংকোচন করব ঠিক, কিন্তু সেটা ভিন্ন পথে। পরিবারের সদস্যদের বেতন কমিয়ে নয়। আম’রা ইতোমধ্যে সারা দেশে আমাদের যে শাখাগুলো আছে সেগুলোর ভাড়া কমানোসহ অন্যান্য খরচ কমানোর উদ্যোগ নিয়েছি। যাদের কাছ থেকে ভাড়া নিয়ে শাখাগুলো করা হয়েছে তাদের সংকটের কথা বুঝিয়ে ভাড়া কমানোর চেষ্টা করছি। সবাই ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন।

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের (এমটিবি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, আম’রা বেতন কমাইনি। এই মুহূর্তে কমানোরও কোনো পরিকল্পনা নেই।

ব্যাংক এশিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরফান আলী বলেন, আমাদের ব্যাংকে কর্মক’র্তাদের বেতন কমানো হবে না। আম’রা ভালো আছি। কর্মক’র্তাদের সঙ্গে নিয়ে সংকট মোকাবেলা করা হবে। ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ তাই মনে করে।

ইস্টার্ন ব্যাংক ও এনসিসি ব্যাংকও কর্মক’র্তাদের বেতন কমাবে না বলে জানা গেছে।

ব্যাংক নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও ইস্টার্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী রেজা ইফতেখার বলেন, এখন পর্যন্ত বেতন কমানোর কোনো চিন্তাভাবনা আমাদের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ করেনি।

তিনি বলেন, বিএবি কোনো ব্যাংকের রেগুলেটরি বডি নয়, তারা পরাম’র্শ দিতেই পারে। বেতন কমানোসহ যে কোনো বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ। আমাদের পর্ষদ এখনও এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনসিসি ব্যাংকের একজন কর্মক’র্তা বলেন, আমাদের ব্যাংকে বেতন কমানো হবে না। কর্তৃপক্ষ এমন সিদ্ধান্তের কথা বিভাগীয় প্রধানদের জানিয়ে দিয়েছে।

ইস’লামী ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন চুপ্পু বলেন, ব্যাংকের বোর্ড এখন পর্যন্ত বেতন কমানোর কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। বৃহস্পতিবার বোর্ডের সভা ছিল। সভায় এ বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। ২৭ জুন বোর্ডের আরেক সভা হবে। সে সভা’র আলোচ্যসূচিতেও বেতন কমানোর এজেন্ডা নেই।

গত রোববার ব্যাংক কর্মক’র্তাদের বেতন ১৫ শতাংশ কমানোর সুপারিশ করে দেশের সব বেসরকারি ব্যাংকের চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি দেয় বিএবি। চিঠিতে কর্মীদের পদোন্নতি, ইনক্রিমেন্ট, ইনসেনটিভ বোনাস বন্ধসহ ১৩ দফা সুপারিশ করা হয়। সেই সুপারিশের আলোকে সিটি ব্যাংক তাদের কর্মক’র্তা-কর্মচারীদের ১৬ শতাংশ বেতন-ভাতা কমিয়েছে। এক্সিম ব্যাংক কমিয়েছে ১৫ শতাংশ। এবি ব্যাংক মে ও জুন মাসের বেতন ৫ শতাংশ কমিয়েছে।

বৃহস্পতিবার আল-আরাফাহ ইস’লামী ব্যাংক (এআইবিএল) কর্মক’র্তাদের বেতন কমিয়েছে ১০ থেকে ২৫ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে কার্যরত ৬০টি ব্যাংকে বর্তমানে জনবল রয়েছে ১ লাখ ৭৮ হাজার ৪৩০ জন। এর মধ্যে বেসরকারি ব্যাংকে আছে ১ লাখ ৯ হাজার ১২৭ জন। বিদেশি ব্যাংকে তিন হাজার ৮৫৮ জন। আর সরকারি ব্যাংকে ৬৫ হাজার ৪৪৫ জন। সূত্র: বিডিনিউজ

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।