প্রচ্ছদ আন্তর্জাতিক

চীন সীমান্তে ভারতের বিশেষ বাহিনী মোতায়েন

34
চীন সীমান্তে ভারতের বিশেষ বাহিনী মোতায়েন
পড়া যাবে: < 1 minute

চীন ও ভা’রতের মধ্যে শান্তি স্থাপনের আশায় আলোচনা চললেও যু’দ্ধের আশংকা উড়িয়ে দিতে পারছে না দুই দেশের কেউই। তাইতো লাদাখসহ চীনা সীমান্ত সংলগ্ন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে বিশেষ বাহিনী মোতায়েন করল ভা’রত।

বর্তমান পরিস্থিতিতে লাদাখের পাশাপাশি, সিকিম ও অরুণাচল প্রদেশের সীমান্তবর্তী এলাকা জুড়ে এই বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, চীনের সঙ্গে লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের (এলএসি) চারটি বিভিন্ন স্থানে সামনাসামনি যু’দ্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। এসব এলাকাতে আগে থেকেই উত্তে’জনা বিরাজ করছে।

এরই মধ্যে ভা’রতীয় সে’নার তরফে জানানো হয় যে, বিতর্কিত গালওয়ান উপত্যকায় প্রায় ১০০ তাঁবু গেড়েছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি। এ ছাড়া ডেমচকের কাছাকাছি অঞ্চলেও সে’না সমাবেশ বাড়িয়েছে বেইজিং। চীনের সাম’রিক তৎপরতার জেরে ভা’রত-চীন সীমান্তে সে’না সমাবেশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দিল্লি-ও। এই পরিস্থিতিতে চীনকে আরও চাপে রাখতে ভা’রতও সীমান্তে সে’না বাড়িয়েছে।

পশ্চিম থেকে পূর্ব দেখতে গেলে চীন ভা’রতকে সীমান্তের যেসব এলাকা দিয়ে আক্রমণ করতে পারে সেগুলো হচ্ছে- গালওয়ান উপত্যকা, প্যাঙগং সো লেক, সিন্ধু নদীর উৎপত্তিস্থল, উত্তরাখণ্ড (কেদারনাথের উত্তর অংশে), সিকিম ভুটান সংযোগস্থল, তাওয়াং উপত্যকা, সিয়াং উপত্যকা, ওয়ালঙ। শেষের তিনটি অঞ্চল অরুণাচল প্রদেশে অবস্থিত।

অঞ্চলভিত্তিক অধিকারকে কেন্দ্র করে একাধিক জটিল এবং বিতর্কিত বিষয়ের জেরে ভা’রত এবং চীনের দ্বিপাক্ষিক স’ম্পর্কে সমস্যা তৈরি হয়েছে। চার হাজার কিলোমিটার দীর্ঘ লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল (এলএসি) বা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর এলাকায় তৈরি হওয়া সমস্যা সেই দ্বন্দ্ব আরও বাড়িয়ে তুলেছে। এই অবস্থায় লাদাখের ভা’রত-চীন সীমান্তে আরও ২০০০ জওয়ান পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভা’রতের কেন্দ্রীয় সরকার।

জানা গিয়েছে, লাদাখে পাঠানো হচ্ছে অ’তিরিক্ত ২০০০ আইটিবিপি জওয়ান। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় যে কোনও মুহূর্তে ফের ঘটতে পারে ভা’রত-চীন সে’না সং’ঘর্ষের ঘটনা। যে কারণে দেশের নিরাপত্তার কথা ভেবে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর অ’ত্যাধুনিক অ’স্ত্র নিয়ে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে দুই দেশের সে’নারা।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।