প্রচ্ছদ বাংলাদেশ

খুনের আসামী হয়েছেন যে তারকারা

48
খুনের আসামী হয়েছেন যে তারকারা
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

তারকারা তো কত মা’মলাতেই নিজেদের জড়ায়। নানা রকম অ’প’রাধে আইনের মুখোমুখি হতে হয়। অনেক তারকার জে’লও হয়। তবে বাংলাদেশসহ হলিউড বলিউডে এমন কয়েকজন তারকা আছেন যারা খু’নের আসামী হয়েছেন।

অ’বৈধ স’ম্পর্কে বাধা দেয়ায় স্কুল শিক্ষিকা ও স্থপতি জয়ন্তী রেজার হ’ত্যাকারী স্বামী আজম রেজার যাব’জ্জীবন কারাদ’ণ্ড হয়। আজম রেজার সঙ্গে অ’ভিনেত্রী আফসানা মিমির স’ম্পর্ক ছিল।

এ স’ম্পর্কে স্ত্রী’ জয়ন্তি মুন্সী বাধা দিলে ২০০৪ সালের ৯ জানুয়ারি বনানীর নিজ ফ্ল্যাটে তাকে পূর্ব পরিক’ল্পিতভাবে হ’ত্যা করা হয়। এই হ’ত্যাকা’ণ্ডে আসামী হয়েছিলেন আফসানা মিমিও। যদিও পরবর্তীতে আফসানা মিমিকে অ’ভিযোগপত্র থেকে খালাস দেওয়া হয়। আজম রেজা অ’ভিনেত্রী শম্পা রেজার ভাই।

ভিলেন ডনও খু’নের আসামী হয়েছেন। সালমান শাহকে হ’ত্যা করা হয়েছে বলে তার মা আসামী করেছিল ডনকে। কিন্তু ডনকে গ্রে’প্তারও করা হয়েছিল। তবে ডন এক সময় নি’র্দোষ প্রমাণিত হয়।

২০০২ সালে ম’দ্যপ হয়ে গাড়ি চালিয়ে মানুষ হ’ত্যার পর ১৮ দিনের জন্য সালমান খানকে হাজতবাস করতে হয়েছিল। তখনই নাকি কারাজীবনের বিভীষিকা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছিলেন তিনি। ওই মা’মলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর পাঁচ বছরের কারাদ’ণ্ড হয় বলিউড নায়ক সালমান খানের। তখন ভক্তদের মাঝে দারুণ উৎকণ্ঠা দেখা যায় প্রিয় নায়কের জন্য। এমনকি পরিচালকদেরও মা’থায় হাত পড়ে নায়কের এমন পরিণতিতে।

২০১৫ সালের এই রায়ের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই শর্ত সাপেক্ষে জামিন পান তিনি। এর আগে ১৯৯৮ সালে রাজস্থানে একটি শুটিংয়ে গিয়ে বিরল প্রজাতির হরিণ শিকারের অ’ভিযোগে তার নামে করা অ’স্ত্র আইনের মা’মলা ঝুলে থাকে দীর্ঘদিন। তবে শেষমেশ তিনি অব্যাহতি পান ২০১৭ সালে।

পরিচালক মধুর ভান্ডারকরকে খু’নের ষড়যন্ত্র করার জন্য দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন মডেল প্রীতি জৈন। মুম্বাইয়ের নগর দায়রা আ’দালত শুক্রবার প্রীতিকে তিন বছরের জে’ল ও ১০ হাজার টাকা জ’রিমানার নির্দেশ দিয়েছিল।

বয়স তখন উনিশ। ক্যারিয়ারের চাকা সবে ঘুরতে শুরু করেছে। ছে’লেদের মানিব্যাগে, আয়নার পেছনে, সেলুনে কিংবা মেলায় অথবা ভিসিআরের ক্যাসেট কভা’রে থাকত তাঁর লাস্যময়ী ছবি। বলিউডে দৌড়ে চলার সময় কেবল শুরু। আর তখনই দমকা হাওয়ায় কোথায় উড়ে গেলেন যেন ক্ষণজন্মা অ’ভিনেত্রী দিব্যা ভা’রতী। দিব্যা মা’রা যান ১৯৯৩ সালের ৫ এপ্রিল। ২৭ বছর কে’টে গেছে। অথচ আজও সাজিদের পরিবারের একজন হয়েই যেন আছেন দিব্যা।

দিব্যার শেষ ব্যবহৃত পারফিউম, তার চুলের যত্ন–আত্তির দ্রব্যসামগ্রী এখনো যত্ন করে রেখেছেন সাজিদ। কিন্তু দিব্যা ছাদ থেকে লাফ দিয়ে সুই’সাইড করেছিলেন নাকি তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয় তা নিয়ে আজও র’হস্য আছে। সাজিদকে আসামী করে মা’মলাও হয়েছিল। কিন্তু দিব্যার মা- বাবাই সাজিদের পক্ষে সাক্ষ্য দিয়ে তাকে মুক্ত করেছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 10
    Shares