প্রচ্ছদ আন্তর্জাতিক কলকাতা

দিল্লির এক সংস্থা শুরু করে দিয়েছে রাম মন্দির নির্মাণ কার্য !

18
দিল্লির এক সংস্থা শুরু করে দিয়েছে রাম মন্দির নির্মাণ কার্য !
পড়া যাবে: < 1 minute

আজ বাংলা : রাম মন্দির নির্মাণ শুরু হলো অযোধ্যায় । এই কাজ শুরু করেছে দিল্লির একটি নির্মাণ সংস্থা কেএলএ । এই কাজ শুরু হয়ে গেছে প্রায় আগের সপ্তাহ থেকে । শৈবাল সাফ করতে প্রায় ১ লক্ষ ঘন পাথর খোদাই করা হচ্ছে। দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে এই কাজ ।

২৩ ধরণের রাসায়নিক ব্যবহার করা হচ্ছে।
এই কাজটি রামের জন্মস্থান পুনরুদ্ধার করার জন্য আন্তরিকভাবে শুরু করা হয়েছে। ২৩ টি বিভিন্ন রাসায়নিক দিয়ে পালিশ করা হচ্ছে সমস্ত পাথর গুলি । কাজটি শেষ হতে প্রায় ৩ মাস সময় লাগতে পারে। তবে বর্তমান করোনার সংকটের কারণে কম শ্রমিকের কাজ করতে কিছুটা সময় নিচ্ছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

আরও পড়ুন:  ‘চিন নিয়ে যা বলার আমি বলবো, কেউ মুখ খুলবেন না’, দলকে কড়া নির্দেশ মমতার

প্রথমে এই কাজটি শুরু করা হয়েছিল পাঁচ জন শ্রমিককে নিয়ে বর্তমানে ১৫ জন শ্রমিক মিলে এই কাজটি শেষ করতে চলেছে। তারা যথেষ্ট সচেতন হয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং মাস্ক ব্যবহার করেই তাদের কাজ গুলি অর্থাৎ পাথর পরিষ্কার করে যাচ্ছে ।

মন্দিরটির নির্মাণ কাজ সম্পর্কে বিশ্ব হিন্দু কাউন্সিলের মিডিয়া ইনচার্জ শারদ শর্মা বলেছিলেন যে কর্মশালায় গত ২৮ বছর ধরে পাথর খোদাই করা হচ্ছে। এই পাথর দিয়ে মন্দিরের নিচতলার কাজ করা হবে। আজ অবধি মন্দিরের মেঝে, সিংহ গেট, নৃত্যের মণ্ডপ, রঙের মণ্ডপ, কালী গর্ভের ঘর, স্তম্ভের মরীচি এবং ছাদ প্রস্তর খোদাই করার কাজ করা হয়েছে। এখনো বাকি আছে মন্দিরের নিচের কাজ ।

আরও পড়ুন:  আইসিসির চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শশাঙ্ক মনোহর

এই মন্দিরটি নির্মাণের কর্মশালাটি ১৯২২ সালে শ্রী রাম জন্মভূমি নিয়াস প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে কাজ বন্ধ থাকায় পাথরের উপর ধুলা জমেছে। শেত্তলাগুলি সরানো হচ্ছে এবং নতুন পাথর খোদাই করা হচ্ছে। সংস্থার প্রকল্প ব্যবস্থাপক সঞ্জয় জেদিয়া জানিয়েছেন, পাথর পরিষ্কারের জন্য প্রথমে পানি ব্যবহার করা হচ্ছে। শেওলা পরিষ্কার না হলেও, দাগ, কনুই সিমেন্ট, ডাস্ট রিমুভার এবং পেইন্ট রিমুভারের মতো রাসায়নিক ব্যবহার করা হচ্ছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।