প্রচ্ছদ আন্তর্জাতিক কলকাতা

বিজেপি জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, ‘রূপকথার গল্প’ দাবি অভিযুক্তের

21
Mahanagar 24x7
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ এবং প্রতারণার অভিযোগ উঠল বিজেপির দক্ষিণ কলকাতা জেলা সভাপতি তথা দিলীপ ঘোষ ঘনিষ্ঠ বিজেপি নেতা সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। বুধবার হরিদেবপুর থানায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন এক প্রাক্তন মহিলা বিজেপি কর্মী।

অভিযোগকারিণী মহিলার দাবি, বিয়ের মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে দিনের পর দিন প্রতারণা করা হয়, এমনকি একাধিকবার তার সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন তৎকালীন দক্ষিণ কলকাতা শহরতলির জেলা সভাপতি সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপির সাংগঠনিক জেলা হিসেবে দক্ষিণ কলকাতা এবং দক্ষিণ কলকাতা শহরতলী একসাথে মিশে যাওয়ার পর বর্তমানে দক্ষিণ কলকাতা সাংগঠনিক জেলার সভাপতি পদে রয়েছেন সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনে পুরোটাকে “রূপকথার গল্প” বলেই দাবি অভিযুক্ত বিজেপি নেতার। পাশাপাশি মিথ্যে মামলায় জড়ানো হচ্ছে দাবি করে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়।

হরিদেবপুর থানা এলাকার মতিলাল গুপ্ত রোডের বাসিন্দা অভিযোগকারিণী ওই মহিলার দাবি, ২০১৫ সালে তিনি ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করার পরই সোমনাথ বাবু সঙ্গে তার পরিচয় এবং ধীরে ধীরে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দুজনের মধ্যে। অভিযোগ, তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি দলের উচ্চ নেতৃত্বর কাছে তার নাম সুপারিশ করে নিজের প্রভাব খাটিয়ে উচ্চপদ পাইয়ে দেবেন বলেও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। প্রতিশ্রুতি মতো বিজেপির শিক্ষক সেলের কনভেনার পদেও বসানো হয়েছিল তাকে। যদিও বছর দুয়েকের মধ্যেই জেলা সভাপতির সঙ্গে তার সম্পর্কের কথা জানাজানি হতেই, তাকে ওই পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাপ দেওয়া হয় বলেও দাবী অভিযোগকারিণীর। হরিদেবপুর থানায় লিখিত অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, বিয়ে করার মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রায় চার বছর তার সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন অভিযুক্ত বিজেপি নেতা। একই সঙ্গে বিভিন্ন আছিলায় অভিযুক্ত তার থেকে প্রায় ৫০ হাজার টাকা নিয়েছিলেন বলেও অভিযোগপত্রে পুলিশের কাছে দাবি করেছেন অভিযোগকারিণী মহিলা।

আরও পড়ুন:  নিয়ন্ত্রণরেখায় সেনা সমাবেশ করছে চিনের বন্ধু পাকিস্তান

ভারতীয় জনতা পার্টিতে এমন তিক্ত অভিজ্ঞতার পর তিনি দল থেকে ইস্তফা দিয়েছেন বলে দাবি অভিযোগকারিণীর।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতেই ইমেলের মাধ্যমে হরিদেবপুর থানায় অভিযোগ জানান ওই প্রাক্তন বিজেপি মহিলা কর্মী। একই ইমেল সিসি করা হয় ডেপুটি কমিশনার, গোয়েন্দাপ্রধান এবং কলকাতার পুলিশ কমিশনারকেও। বুধবার সকালে তিনি নিজেও থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। প্রতিক্রিয়া জানতে অভিযুক্ত বিজেপি নেতা এবং অভিযোগকারিণী দুই পক্ষের সঙ্গেই যোগাযোগ করা হয় মহানগর ২৪×৭ এর তরফে। অভিযোগকারিণী মহিলা জানান, তারা দুজনেই বিবাহিত এবং দলে থাকাকালীন সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। প্রশ্ন হল, সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে বিবাহিত জানা সত্ত্বেও কেন তার সঙ্গে সম্পর্কে জড়ালেন এবং বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে বিশ্বাস করলেন? অভিযোগকারিণীর দাবি, তারা দুজনেই বর্তমান বিবাহিত সম্পর্ক থেকে বিচ্ছেদ দিয়ে, একে অপরের সঙ্গে নতুন করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবেন বলে ঠিক করেছিলেন। কিন্তু প্রতিশ্রুতি পূরণ না করে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ হন তিনি। প্রতিবাদ করলে তাকে একাধিকবার দুষ্কৃতি মারফত হুমকি দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ মহিলার।

আরও পড়ুন:  ফের প্রাতঃভ্রমণরত দিলীপকে বাধা! ঢুকতে দেওয়া হল না ইকো পার্কে

যা শুনে অভিযুক্ত বিজেপি নেতা সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যাযয়ের দাবি, “এসব শুনে রূপকথার গল্পের মতো লাগছে। আমাদের বিরুদ্ধে এরকম হাজার হাজার মিথ্যা মামলা করা হয়। আমার বিরুদ্ধে কে অভিযোগ করেছে আমার জানা নেই, আপনার কাছেই প্রথম শুনলাম”। অভিযোগকারিণী মহিলাকে কি আপনি চেনেন? বিজেপি নেতার দাবি, “কোন একটা সময় তিনি বিজেপি করতেন, এখন আর দলে নেই, কাজেই কী ব্যাপার বলতে পারব না”।

 

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 2
    Shares