প্রচ্ছদ আন্তর্জাতিক কলকাতা

কোভিড চিকিৎসায় নতুন নজির, শুধু মেডিক্যাল কলেজেই সেরে উঠলেন ১০০০ জনের বেশি

21
Mahanagar 24x7
পড়া যাবে: < 1 minute

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ঢাল তরোয়ালের অভাব ছিল শুরু থেকেই। ফলে কোভিড যুদ্ধে কাঙ্খিত সাফল্য আসতে সময় লাগছিল। তবে যখন থেকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাজ্য সাফল্যের মুখ দেখতে শুরু করেছে। তখন থেকেই পশ্চিমবঙ্গে তরতরিয়ে করোনা থেকে রোগীদের সেরে ওঠার সংখ্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। বুধবার সকাল ৯টায় পাওয়া স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গোটা রাজ্যে এখনও পর্যন্ত সাড়ে ১২ হাজার করোনা রোগী হাসপাতাল থেকে ছুটি পেয়েছেন। যার মধ্যে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেই সুস্থ হয়েছেন ১০০০ এর বেশি রোগী। আর এটা হয়েছে গত ৫ মে থেকে ৩০ জুনের মধ্যে।

রাজ্যে সর্বপ্রথম ডেডিকেটেড কোভিড ওয়ার্ড পথ চলা শুরু করেছিল এই কলকাতা মেডিকেল কলেজ থেকেই। মেডিকেল কলেজের নতুন বিল্ডিং এর প্রায় পুরোটাই কোভিড চিকিৎসার জন্য উৎসর্গ করেছিল রাজ্য সরকার যেখানে তিনশো’র বেশি বেড ছিল। করোনা মামলায় বিশেষ বাড়াবাড়ি হবার আগেই রাজ্য সরকারের এই সুপরিকল্পিত পদক্ষেপ প্রাণ বাঁচিয়ে ছিল বহু মানুষের। দিন কয়েক আগেও কলকাতা মেডিকেল কলেজ থেকে করোনা চিকিৎসার পর ছাড়া পেয়েছেন ৯৯ বছরের এক বৃদ্ধ। আর এই সাফল্য এবং কর্মকাণ্ডের নেপথ্যে যার নাম রয়েছে তিনি হলেন মেডিকেল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতির ডাঃ চেয়ারম্যান নির্মল মাজি। তাঁর তথা এই হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকদের দিনরাত এক করে পরিষেবার ফলে ইতিমধ্যেই মেডিক্যাল কলেজ থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১০০০ জনের বেশি করোনা আক্রান্ত রোগী।

আরও পড়ুন:  মহেশ ভট্ট ও রিয়ার এই দুজনের আসল সম্পর্ক কি? জানালেন পরিচালকের অ্যাসোসিয়েট

বর্তমানে সুস্থতার হারে গোটা দেশে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থা বেশ সন্তোষজনক জায়গায় বলা চলে। মৃত্যুর হার রাশ টানা প্রয়োজন হলেও জাতীয় হারের তুলনায় রাজ্যে সুস্থতার হার বেশি। বুধবার পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, রাজ্যে সুস্থতার হার ৬৫.৩৫ শতাংশ। যা দেশে সুস্থতার হারে সেরা ১৫টি রাজ্যের মধ্যে রয়েছে। যদি এই ধারা বজায় থাকে তবে আগামী সময় সুস্থতার হার আরও অনেকটাই বাড়বে বলে মনে করছেন চিকিৎসক মহল।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।