প্রচ্ছদ জানা অজানা

ঠান্ডা পানি পানের অভ্যাস হতে পারে বড় বিপদ!

36
ঠান্ডা পানি পানের অভ্যাস হতে পারে বড় বিপদ!
পড়া যাবে: < 1 minute

লাইফস্টাইল ডেস্ক : তাপমাত্রা উর্দ্ধমুখী। গরমের জেরে ঘরের বাইরে বের হওয়া মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে কাজের প্রয়োজনে বেশির ভাগ মানুষকে বাইরে বের হতেই হয়। আর বাইরে থেকে গরমে ঘেমে বিদ্ধস্ত হয়ে বাড়ি ফিরে ফ্রিজ খুলে ঠান্ডা পানি খাওয়ার পর তবেই কিছুটা স্বস্তি মেলে। তবে প্রচণ্ড গরমে বাইরে থেকে বিদ্ধস্ত হয়ে ঘরে ঢুকেই এই ভাবে ঠান্ডা পানি খাওয়ার অভ্যাস মারাত্মক বিপদ ডেকে আনতে পারে। আসুন জেনে নেই ঠান্ডা পানি পানের অভ্যাস কী কী বিপদ ডেকে আনতে পারে:

বিশেষজ্ঞদের মতে, খাওয়ার পরে ঠান্ডা পানি পানের অভ্যাস অস্বাস্থ্যকর। কারণ, এর ফলে শ্বাসনালীতে অতিরিক্ত পরিমাণে শ্লেষ্মার আস্তরণ তৈরি হয়, যা থেকে সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

আরও পড়ুন:  হেঁচকি বন্ধের ১০ উপায়

মাত্রাতিরিক্ত ঠান্ডা পানি পানের ফলে রক্তনালী সংকুচিত হয়ে পড়ে। অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি পানে আমাদের স্বাভাবিক পরিপাকক্রিয়াও বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে হজমের মারাত্মক সমস্যা হতে পারে।

শরীরচর্চা বা ওয়ার্কআউটের পর ঠান্ডা পানি একেবারেই পান করা যাবে না। কারণ, ঘণ্টাখানেক ওয়ার্কআউটের পর শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে অনেকটা বেড়ে যায়। এ সময় ঠান্ডা পানি পান করলে শরীরের তাপমাত্রার সঙ্গে বাইরের পরিবেশের তাপমাত্রার সামঞ্জস্য বিঘ্নিত হয়। ফলে হজমের নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ওয়ার্কআউটের পর ঠান্ডা পানির পরিবর্তে কুসুম গরম পানি পান করলে বেশি উপকার পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন:  চায়ের কাপে তিন জিনিস কমাবে ওজন

দন্ত চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি পানের ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে দাঁতের ভেগাস স্নায়ুর ওপর। এই ভেগাস স্নায়ু আমাদের স্নায়ুতন্ত্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি পান করলে ভেগাস স্নায়ু উদ্দীপিত হয়ে ওঠে। ফলে আমাদের হৃদযন্ত্রের গতি অনেকটা কমে যেতে পারে।

বাংলা ম্যাগাজিন ডেস্ক

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 4
    Shares