প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

রূপচাঁদার নামে গ্রামে রাক্ষুসে পিরানহা বিক্রি

23
রূপচাঁদার নামে গ্রামে রাক্ষুসে পিরানহা বিক্রি
পড়া যাবে: < 1 minute

‘রূপচাঁন্দা নেবেন না-কি…? রূপচাঁন্দা…! দেখতি সুন্দর, খাতি ভালো, সস্তায় কেনেন রূপচাঁন্দা…!’

মাছের ফেরিওয়ালার এমন হাঁক-ডাকে রাস্তায় ছুটে যান গ্রামের ক্রেতারা। তাঁরা মাছের চেহারা দেখেন। দরদাম কষেন। দেড় থেকে দুইশ টাকায় প্রতিকেজি রূপচাঁদা কিনতে পেরে খুশি হন ক্রেতারা। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে এমন দৃশ্য দেখা যায় শ্যামপাড়া গ্রামে।

নিষিদ্ধ ‘পিরানহা’ দেশীয় সুস্বাদু রূপচাঁদা মাছ বলে বিক্রি করা হচ্ছে বাগেরহাটের চিতলমা’রী উপজে’লার গ্রামে গ্রামে। পিরানহা মূলত রাক্ষুসে স্বভাবের এবং বাংলাদেশের পরিবেশের সাথে অসংগতিপূর্ণ।

দেশীয় প্রজাতির মাছ ও জীববৈচিত্র্যের জন্য হু’মকি স্বরূপ। এজন্যে পিরানহাকে সরকার নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে। সরকারি সকল নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে করো’নার চলতি ক্রান্তিকালে পিরানহা বিক্রি হচ্ছে গ্রামে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিক্রেতা জানান, চিতলমা’রী উপজে’লা সদরের মাছের আড়ৎ হতে এই মাছ তিনিসহ অন্যান্য ফেরিওয়ালারা সংগ্রহ করেন। তারপর দড়িউমাজুড়ি, খাসেরহাট, শ্যামপাড়া, দুর্গাপুর, খড়মখালি, বাখেরগঞ্জ, নালুয়া, শৈলদাহসহ বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে তাঁরা মাছগুলো বিক্রি করেন। বেশিরভাগ মাছ আড়ৎওয়ালারা বরিশাল হতে আনেন বলে তিনি দাবী করেন।

এ ব্যাপারে চিতলমা’রী উপজে’লার মৎস্য কর্মক’র্তা জিল্লুর রহমান রিগ্যান জানান, সরকারি নিষেধাজ্ঞা যারা অমান্য করবে তাদের বি’রুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইতোমধ্যে পিরানহা ও বিদেশী মাগুর মাছ চাষাবাদ ও ক্রয়-বিক্রয় না করার জন্য উপজে’লার মাছের আড়ৎ ও ডিপোগুলোতে জানানো হয়েছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।