প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

মাদ্রাসার কক্ষে নারীদের ধর্ষণ করতেন ভাইস প্রিন্সিপাল

47
মাদ্রাসার কক্ষে নারীদের ধর্ষণ করতেন ভাইস প্রিন্সিপাল
পড়া যাবে: < 1 minute

ফেনীর দাগনভূঞা উপজে’লার ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের এক মাদ্রাসার ভাইস প্রিন্সিপালের বি’রুদ্ধে গৃহবধূকে ধ’র্ষণ চেষ্টার অ’ভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছেন এলাকার মানুষ। এর আগেও ওই হুজুর ঝাড়ফুঁকের নামে একাধিক নারীর সঙ্গে এমন আচরণ করলেও লোকলজ্জার ভ’য়ে তারা ছিলেন নীরব। তবে এবারের ঘটনা প্রকাশ পেলে একে একে মুখ খুলতে শুরু করেছেন অনেকেই। কঠোর শা’স্তির দাবি তাদের।

স্থানীয়দের অ’ভিযোগ, এই মাদ্রাসার দোতালার একটি কক্ষ ব্যবহার করে ভাইস প্রিন্সিপাল মা’ওলানা ইউসুফ সিদ্দিকী’ দীর্ঘদিন ধরে তাবিজ-কবজ আর ঝাড়ফুঁকের নামে নারীদের তার লালসার শিকার বানিয়ে আসছেন।

গত ৪ জুলাই এক নারী ইউসুফ সিদ্দিকী’র কাছে তাবিজের জন্য গেলে কৌশলে তার শ্বশুর-শাশুড়িকে আরেক কক্ষে পাঠিয়ে তাকে জো’রপূর্বক ধ’র্ষণের চেষ্টা চালান তিনি। সেখান থেকে বের হয়ে ভুক্তভোগী নারী বিষয়টি তার স্বজনদের জানালে এ ঘটনার প্রতিবাদ জানান তারা।

বিষয়টি জানাজানির পর এ হুজুরের কাছে গিয়ে বিভিন্ন সময় যে সব নারী এমন আচরণের শিকার হয়ে লোকলজ্জায় বলেননি তারা এখন মুখ খুলতে শুরু করেছেন। এতে ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে এলাকাবাসী।

অবস্থা বেগতিক দেখে দোষ স্বীকার এবং ক্ষমা চেয়ে এ হুজুর স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীকে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে এ ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন।

কোনো ব্যক্তির অ’পকর্মের দায়ভা’র প্রতিষ্ঠান নেবে না বলে জানান দাগনভূঞা ইছাহাকী’য়া দাখিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মা’ওলানা নুরুল আমিন।

এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক শা’স্তির পাশাপাশি ১৯৩৬ সালে গড়া এ ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান থেকে অ’ভিযু’ক্ত শিক্ষককে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছে স্থানীয়রা।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 21
    Shares