প্রচ্ছদ অর্থ ও বাণিজ্য

সিএসআর কার্যক্রমে কোন ব্যয় করেনি ১৯ ব্যাংক-প্রতিষ্ঠান

29
সিএসআর কার্যক্রমে কোন ব্যয় করেনি ১৯ ব্যাংক-প্রতিষ্ঠান
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

নিজস্ব প্রতিবেদক : অনিয়ম-দুর্নীতি এবং ঋণ খেলাপির কারণে বিভিন্ন সামাজিক কাজে অংশগ্রহণ করতে পারছে না ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ২০১৯ সাল শেষে সামাজিক দায়বদ্ধতা বা সোশ্যাল করপোরেট রেসপনসিবিলিটি (সিএসআর) কার্যক্রমে কোনো প্রকার ব্যয় করেনি দেশের ১৯টি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান।

দেশে কার্যরত তফসিলি ব্যাংকসমূহের মধ্যে জুলাই-ডিসেম্বর, ২০১৯ ষান্মাসিকে ৬টি ব্যাংক (বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক, বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক, কমিউনিটি ব্যাংক এবং পদ্মা ব্যাংক) কর্পোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রমের আওতায় সিএসআর খাতে কোনরূপ ব্যয় করেনি।

বাংলাদেশে কার্যরত ৩৩টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান জুলাই-ডিসেম্বর, ২০১৯ ষান্মাসিকে সিএসআর খাতে ব্যয় করেছে। বাকি ১৩টি প্রতিষ্ঠান কোন ব্যয় করেনি। জুলাই-ডিসেম্বর, ২০১৯ ষান্মাসিকে আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহ কর্তৃক সিএসআর খাতে মোট ব্যয়ের পরিমাণ প্রায় ২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা।

আলোচ্য সময়ে যেসব আর্থিক প্রতিষ্ঠান সিএসআর খাতে অংশগ্রহণ করতে পারেনি সেগুলো হলো- অগ্রণী এসএমই ফাইন্যান্সিং কোম্পানি, বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি, বাংলাদেশ ইনফ্রাস্ট্রাক্চার ফাইন্যান্স ফান্ড, বে লিজিং এন্ড ইনভেস্টমেন্ট, সিভিসি ফাইন্যান্স, , লংকান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স, মাইডাস ফাইন্যান্সিং, প্রিমিয়ার লিজিং এন্ড ফাইন্যান্স ইত্যাদি।

আরও পড়ুন:  ভার্চুয়াল মিটিং ও সেমিস্টার ফি ব্যাংকিং চ্যানেলে পাঠানোর সুযোগ দিল বিবি

২০১৯ সালের শেষ ৬ মাসে ব্যাংক গুলো সিএসআর খাতে ৪০৯ কোটি টাকা ব্যয় করেছে। যা আগের ৬ মাসের তুলনায় ১৭০ কোটি টাকা বেশি। জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত খাতটির ছিল ২৩৯ কোটি টাকা।

উল্লেখ, গত ১৭ জুন বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে তাদের সামাজিক দায়বদ্ধতা (সিএসআর) কর্মসূচির ব্যয়ের ৬০ শতাংশই স্বাস্থ্য খাতে করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এক্ষেত্রে চিকিৎসা উপকরণ ও সুরক্ষা সামগ্রী দিয়ে সহযোগিতা করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্য খাতে নির্ধারিত ব্যয়ের যে সীমা রয়েছে তা নিশ্চিত করতেও বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের জনস্বাস্থ্যে উদ্ভূত সংকট মোকাবিলায় স্বাস্থ্য খাতে বিভিন্নমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ অত্যাবশ্যক হয়ে পড়েছে। এ লক্ষ্যে সিএসআর কর্মকাণ্ডের আওতায় স্বাস্থ্য খাতে নিয়মিত কার্যক্রম কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা ব্যবস্থায় অত্যাবশ্যকীয় চিকিৎসা উপকরণ যেমন পিসিআর, ভেন্টিলেটর মেশিন, অক্সিজেন সিলিন্ডার ক্রয় এবং স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত চিকিৎসকসহ সবার স্বাস্থ্য ঝুঁকি নিরসনে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী প্রদানের মাধ্যমে সহযোগিতা করতে হবে। এ সহযোগিতার আওতা জেলা পর্যায়ে বিস্তৃত করার ব্যবস্থা নিতে হবে।

আরও পড়ুন:  জুলাই-সেপ্টেম্বর মাসে বাণিজ্যিক ব্যাংকে সরকারের ঋণ ২৬ হাজার ৩০০ কোটি টাকা বেড়েছে

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, বিদ্যমান নির্দেশনা অনুযায়ী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশের জনস্বাস্থ্যে উদ্ভূত সংকট মোকাবিলায় সিএসআর ব্যয় বণ্টনে স্বাস্থ্য খাতে ৬০ শতাংশ, শিক্ষা খাতে ৩০ শতাংশ এবং জলবায়ু ঝুঁকি তহবিল খাতে ১০ শতাংশ ব্যয় করার নির্দেশনা রয়েছে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে গুরুত্ব বিবেচনায় কোভিড-১৯ মোকাবিলায় স্বাস্থ্য খাতে নির্ধারিত ৬০ শতাংশ ব্যয়ের পরিমাণ এবং যথার্থতা নিশ্চিত করতে হবে। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্ধারিত ফরম্যাটে এ সংক্রান্ত ব্যয়ের তথ্য পাঠানোর কথাও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 5
    Shares