প্রচ্ছদ অপরাধ

মাঝরাতে ঘুম থেকে উঠে মাকে খোঁজে রেনুর মেয়ে তুবা

30
মাঝরাতে ঘুম থেকে উঠে মাকে খোঁজে রেনুর মেয়ে তুবা
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

এক বছর আগে সন্তানদের স্কুলে ভর্তির বিষয়ে খোঁজখবর নিতে গেলে রাজধানীর বাড্ডায় প্রাইমারি স্কুল গেটে ছেলেধরা সন্দেহে রেনুকে গ’ণপিটু’নি দিয়ে হ’ত্যা করা হয়। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ৫০০ জনের বিরুদ্ধে হ’ত্যা মামলা দায়ের করা হলেও এখনো দাখিল করা হয়নি প্রতিবেদন।

এদিকে মাকে হারিয়ে ভালো নেয় রেনুর মেয়ে তুবা। মাঝরাতে ঘুম থেকে উঠে মাকে খুঁজে বেড়ায় সে। তুবা সবসময় তার মায়ের কথা বলে। ঠিকমতো ঘুমায় না। মন খারাপ করে থাকে সারাক্ষণ।

নিহত রেনুর তাহসিন আল মাহির নামে ১১ বছরের একটি ছেলে ও তুবা নামের চার বছর বয়সী এক মেয়ে রয়েছে। তারা এখন তার খালা নাজমুন নাহার নাজমার কাছেই থাকে।

মাহির বনানী বিদ্যানিকেতনে পঞ্চম শ্রেণিতে ও তুবা শিশুমেলা স্কুলে প্লেতে পড়ছে। তুবার খালা নাজমা বলেন, ‘তুবা সবসময় তার মায়ের কথা বলে। ঠিকমতো ঘুমায় না। মন খারাপ করে থাকে। এমনও হয় যে রাত ২টা বা ৩টার সময় ঘুম থেকে উঠে মাকে খোঁজে। ওর এই কষ্ট আর সহ্য হয় না!’

আরও পড়ুন:  নকল মাস্ক : শারমিনের তিন দিনের রিমান্ড আবেদন

মামলার বাদী সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটু বলেন, ‘হ’ত্যার এক বছর হয়ে গেল। কিন্তু এখনো মামলার তদন্ত শেষ হলো না। কবে তদন্ত শেষ হবে আর কবে বিচার পাব? এখন তো মনে হচ্ছে বিচারই পাওয়া যাবে না।’

মামলার তদন্তকারী তদন্ত কর্মকর্তা ও ডিবির পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল হক বলেন, ‘মামলাটির গুরুত্বসহকার তদন্ত চলছে। আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই আদালতে প্রতিবেদন জমা দিতে পারব।’

রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় গত বছরের ২০ জুলাই সকালে ছেলেধরা সন্দেহে তাসলিমা বেগম রেনুকে পিটিয়ে আহত করে বিক্ষুব্ধ জনতা। গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই ঘটনায় ওইদিন বাড্ডা থানায় ৪০০-৫০০ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে হ’ত্যা মামলা করেন রেনুর ভাগ্নে নাসির উদ্দিন।

আরও পড়ুন:  স্বামীর তালাকে দেয়ায় আত্মহ’ত্যা করল গৃহবধূ

মামলা দায়েরের পর ১৪ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন–মো. শাহীন (৩১), মো. বাচ্চু মিয়া (২৮), মো. বাপ্পি (২১), ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় মোল্লা (২০), মুরাদ মিয়া (২২), মো. সোহেল রানা (৩০), মো. বিল্লাল (২৮), মো. আসাদুল ইসলাম (২২), মো. রাজু (২৩), আবুল কালাম আজাদ (৫০), মো. কামাল হোসেন (৪০), মো. ওয়াসিম (১৪), রিয়া বেগম ময়না (২৭) ও মো. জাফর হোসেন (২০)। তাদের মধ্যে ওয়াসিম, হৃদয় ও রিয়া বেগম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন পাঁচ আসামি। তারা হলেন–রিয়া বেগম, বাচ্চু মিয়া, শাহীন, মুরাদ ও বাপ্পি।

বাংলা ম্যাগাজিন ডেস্ক

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।