প্রচ্ছদ অপরাধ প্রেম করে অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক ,পরবর্তীতে বিয়ের প্রলোভনে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণের...

প্রেম করে অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক ,পরবর্তীতে বিয়ের প্রলোভনে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণের অভিযোগ

189
পড়া যাবে: 3 মিনিটে
advertisement

আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে এক কলেজছাত্রীকে দীর্ঘ আড়াই বছর ধরে ধর্ষণ করা হয়েছে। এমন ঘৃণ্য ঘটনা ঘটেছে সাভারের আশুলিয়ায়। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্তকে আটক করেছে। যশোরের কেশবপুরে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ ও জোরপ‚র্বক গর্ভপাত ঘটিয়ে গর্ভের সন্তানকে মাটিচাপা দেয়া হয়েছে। কালকিনিতে স্কুলছাত্রী ও সাভারের জামগড়া এলাকায় এক নারী পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, তাড়াশে স্কুলছাত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণের অভিযোগে একজনসহ বিভিন্ন স্থানে ২জনকে আটক করেছে পুলিশ।

advertisement

সাভার : আশুলিয়ায় আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে এক কলেজছাত্রীকে দীর্ঘ আড়াই বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তানভীর রায়হান (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আশুলিয়ার জামগাড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করে গতকাল শনিবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতার তানভীর রায়হান ভোলা জেলার চরফ্যাশন থানার জিন্নাঘর এলাকার বশির আহমেদের ছেলে। এর আগে গত শুক্রবার দুপুরে ভুক্তভোগী ওই কলেজছাত্রী বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহার স‚ত্রে জানা যায়, গত তিন বছর আগে এক বন্ধুর মাধ্যমে রায়হানের সঙ্গে ওই কলেজছাত্রীর পরিচয় হয়। পরিচয়ের সুবাদে একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরই ধারাবাহিকতায় আড়াই বছর আগে তাদের মধ্য শারীরিক সম্পর্ক হয়। পরবর্তীতে রায়হান জানায় শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও ধারণ করেছে সে। তার কথামত না চললে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও ছেড়ে দেবে। এই ভয় দেখিয়ে গত আড়াই বছর যাবৎ তাকে ধর্ষণ করে আসছে রায়হান। বিয়ের কথা বললে নানা টালবাহানা করতে থাকে। গত শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ওই কলেজছাত্রীকে ফের ধর্ষণ করে রায়হান।

আশুলিয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজাহারুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:  আমার মেয়েকে পাঁচ মাসের গর্ভবতী করছে মাদ্রসার হুজুর

অপরদিকে শুক্রবার বিকেলে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় এক নারী পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী। এঘটনার পর থেকে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার মৃত রূপ মিয়ার ছেলে অভিযুক্ত ধর্ষক আনা মিয়া (৬৫) পলাতক রয়েছেন বলে জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফজিকুল ইসলাম।

সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় স্কুল ছাত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগে মজিবর রহমান(৩৯) নামে এক ওই ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে পুলিশ ফাঁদ পেতে হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের ১০নং ব্রিজ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার মজিবর তাড়াশ পৌরসভা এলাকার ভাদাস গ্রামের আলহাজ আবুল হোসেনের ছেলে ও দু’সন্তানের জনক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কিছুদিন আগে ব্যবসায়ি মজিবর রহমানের সাথে তাড়াশের মাগুড়া বিনোদ ইউনিয়নের নাদোসৈয়দপুর গ্রামের পাটগাড়ীপাড়ার বাসিন্দা ও নাদোসৈয়দপুর জনকল্যান উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীর(১৫) মোবাইলে পরিচয় হয়। পরিচয়ের এক পর্যায়ে মজিবর কৌশলে ওই ছাত্রীর সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলেন। সম্প্রতি ওই ছাত্রীকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে বগুড়া শহরের একটি আবাসিক হোটেলে নিয়ে রাত্রীযাপন করে কৌশলে স্মার্টফোনে অশ্লীল ভিডিওি ধারণ করেন তিনি। এক পর্যায়ে স্কুলছাত্রী বিষয়টি তার অভিভাবকদের জানালে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

কেশবপুর (যশোর) : যশোরের কেশবপুরে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ ও জোরপ‚র্বক গর্ভপাত ঘটিয়ে মাটিচাপা দেওয়ার গতকাল শনিবার সকালে আদালতের নির্দেশে কেশবপুর থানা পুলিশ সেই লাশ উত্তোলন করে। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এনাম‚ল হক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহজাহান আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ জানায়, কেশবপুরের সারুটিয়া গ্রামে নানা বাড়ি থেকে লেখাপড়া করত মেয়েটি। সে নবম শ্রেণির ছাত্রী। এলাকার প্রভাবশালী ও আব্দুল খালেক সরদারের ছেলে ৩ সন্তানের বাবা বিল্লাল হোসেন (৪০) মেয়েটিকে জোরপ‚র্বক ধর্ষণ করে। ফলে ছাত্রীটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। গত মঙ্গলবার বিল্লাল হোসেন সরদার অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীকে জোরপ‚র্বক গর্ভপাত করায়। গর্ভপাত ঘটিয়ে প্রথম পুকুরের পানিতে ফেলে। ঘটনাটি জানাজানির পর লাশটি তুলে গ্রামের ইউনুচ সরদারের এজমালি কবরস্থানে মাটি চাপা দেয়। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসী ও গ্রাম পুলিশ কবরস্থানটি ৫ দিন পাহারা দিয়ে রাখে। এ ঘটনায় কেশবপুর থানায় গত বুধবার ছাত্রীর মামা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা করে। থানার পুলিশ মামলার আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

আরও পড়ুন:  এবার প্রতিবন্ধী নারী যাত্রীকে ধর্ষণ করল বাস চালক

কালকিনি : বিয়ের প্রলোভন দিয়ে মাদারীপুরের কালকিনিতে লিটন বাড়ৈ নামের এক সাবেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। ধর্ষক লিটন বাড়ৈ উপজেলার নবগ্রাম এলাকার ৮নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য। এদিকে ধর্ষিতার পরিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলামের কাছে ও একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা গেছে, উপজেলার নবগ্রাম এলাকার নবগ্রাম কদমপট্টি গ্রামের যুবরাজ বাড়ৈর ছেলে ইউপি সদস্য লিটন বাড়ৈ ওই স্কুল ছাত্রীর বাড়ির একটি পুকুরে মাছ চাষ করেন। এ স‚ত্র ধরে প্রথমে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক হয়। পরে তাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত ধর্ষণ করে আসছে ইউপি সদস্য লিটন বাড়ৈ। ধর্ষক লিটন বাড়ৈ গত শুক্রবার রাতে পুনরায় ওই ছাত্রীকে ঘরে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনা জানাজানি হলে ধর্ষিতার পরিবার স্থানীয় কয়েকজন মাতুব্বরকে বিষয়টি যানান।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

advertisement