প্রচ্ছদ জেলা ডিবি পরিচয়ে আ. লীগ নেতার চাঁদাবাজি, গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

ডিবি পরিচয়ে আ. লীগ নেতার চাঁদাবাজি, গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

79
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

সাভারে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে একটি ওষুধের দোকানে চাঁদাবাজির ঘটনায় পৌর আওয়ামী লীগ নেতা মহসিন বাবুসহ তিনজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী। সোমবার রাত ১০ টার দিকে সাভারের ব্যাংক টাউন বটতলা এলাকার সরদার মেডিকেল নামে একটি ওষুধের দোকানে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আটক মহসিন বাবু (৩৯) স্থানীয় আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সাভার পৌর এলাকার জালেশ্বর মহল্লার মৃত আলমগীর হোসেনের ছেলে। আটক অন্য দুজন হলেন- চাপাইন এলাকার মৃত শফিকুর রহমানের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (৩৬) ও রেডিও কলোনি ভাটপাড়া এলাকার আব্দুল মতিন ভূঁইয়ার ছেলে মো. সালেহ আল-মামুন (৩৭)। এ ছাড়া, চাঁদাবাজির ঘটনায় পৌর এলাকার টিয়াবাড়ি মহল্লার ঝন্টু (৩৮) ও জয় (৩৬) নামে আরও দুজন পালিয়ে গেছে।

আরও পড়ুন:  বিএনপি- জামাতকে মোকাবেলায় আমার মতো শামীম ওসমানই যথেষ্ট

থানা-পুলিশ, ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা জানায়, সোমবার রাত ১০ টার দিকে মহসিন বাবুর নেতৃত্বে দুটি মোটরসাইকেল নিয়ে পাঁচ ব্যক্তি সরদার মেডিকেল গিয়ে নিজেদের ডিবি পুলিশ হিসেবে পরিচয় দিয়ে ব্যবসায়ী এসএম রাজিবুর রহমানের কাছে ২৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। কিন্তু ওই ব্যবসায়ী চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তাকে মারধর করে মোটরসাইকেলে করে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়দানকারী আওয়ামী লীগ নেতা মহসীন বাবু ও তার সঙ্গীদের পরিচয়পত্র দেখতে চায়। ঘটনা বেগতিক দেখে দুই সদস্য পালিয়ে গেলেও পুলিশের পরিচয়পত্র দেখাতে না পারায় তিনজনকে আটক করেন স্থানীয়রা। পরে তাদেরকে গণধোলাই দিয়ে সাভার মডেল থানা-পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

জানতে চাইলে সাভার পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল গনি বলেন অপরাধী যেই হোক তাকে শাস্তি পেতে হবে। এ ছাড়া দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:  আ. লীগের প্রার্থী তালিকায় যে ২৫ নতুন মুখ

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী রাজিবুর রহমান বলেন, এর আগেও এই চক্রটি গত ২৫ মে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে নিজেদের গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয় দিয়ে আমার দোকানে আসে। এ সময় দোকানে নকল ও ভেজাল ওষুধ আছে দাবি করে আমাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ২৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাহমুদ বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় তাদেরকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট: