fbpx
প্রচ্ছদ ভিন্ন স্বাদের খবর

আধা সেকেন্ড দেরি হলে লাশ হয়ে যেতাম; বাঁচিয়ে দিল দুটি বিড়াল!

24
আধা সেকেন্ড দেরি হলে লাশ হয়ে যেতাম; বাঁচিয়ে দিল দুটি বিড়াল!

পড়া যাবে: < 1 minute

মাত্র ৩০ সেকেন্ডের জন্য বেঁচে গিয়েছেন, কাকতালীয়ভাবে একটি বিড়াল জামায় টান দেওয়ায় সিলিং ফ্যানের নিচ থেকে সরে আসেন। এরপর বিকট শব্দে ভেঙে পড়ে সিলিং ফ্যান। এমলনই ভয়ংকর অভিজ্ঞতা শেয়ার ভকরেছেন ফারহানা হক নীলা নামের ঢাকায় বসবাস্কারী এক নারী।

নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে নীলা লিখেছেন, পিসিতে বসে কাজ করছিলাম, হঠাৎ মা বিড়াল আর বাচ্চা বিড়াল এসে আমারে স্কার্ট কামড়ে ধরে টানছিলো। ওরা আমার পোষা নয় তবে আমার বাসাতেই বাচ্চাগুলোর জন্ম হয়েছিল। ভাবলাম, কাল একবার বিস্কিট খেতে দিয়েছিলাম আজ বোধহয় আবার বিস্কিট খেতে চাচ্ছে।

চেয়ার থেকে ২ পা সামনে এগোতে বিকট শব্দ। ভয়ে চিৎকার করে উঠলাম কে কে বলে। প্রথমে ভেবেছি কেউ জানলার গ্লাস ভেঙ্গে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছে। পরে ভেবেছি কম্পিউটার বাস্ট হয়ে গেছে। খুব ভয়ে ভয়ে রুমের দরজার দিকে আগালাম। দৃশ্য দেখে ভয় পেয়ে গেলাম। ঠিক আমার মাথার উপরে থাকা ফুল স্পিডে চলন্ত ফ্যান ছিড়ে মাটিতে পড়ে গেছে।

আরও পড়ুন:  রেললাইনে ট্রেনের বদলে ছুটছে সাইকেল, ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই ভাইরাল

এমনই একটি ভয়ংকর ঘটনা শেয়ার করেছেন একজন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী। ফারহানা হক নীলা নামের ওই নারী,
তিনি বলেন, প্রায় ১০-১৫ মিনিট পর স্বাভাবিক হলাম। আর একটু দেরি হলেই, কি হতো!? আর ঘটনাটি ঘটে যাওয়ার পর। বেড়াল ২টি স্বাভাবিক। প্রায় এক মাস আগে এই মা বিড়ালটা আমার এই রুমেই, খাটের নীচে চারটি বাচ্চা জন্ম দেয়। এ মাসের শুরুর দিকে বাচ্চাগুলো হাঁটা শিখলে আমার ঘর থেকে বের হয়ে বারান্দায় পানির মেশিনের জালি ঘরে থাকে আর চলাফেরা করে। আজ হঠাৎ এই মা বিড়াল আর একটা বাচ্চা জানালা দিয়ে এসে ঢুকে আমাকে বাঁচায়ে দিয়ে গেল। সৃষ্টিকর্তার কাছে লাখ লাখ শুকরিয়া।

আরও পড়ুন:  তিন লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে সোনার মাস্ক!

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন banglanewsmagazine আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

  • 5
    Shares