প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয়

‘বাংলার বস’ বিক্রিতে সিন্ডিকেট বাধা

46
‘বাংলার বস’ বিক্রিতে সিন্ডিকেট বাধা
পড়া যাবে: 3 মিনিটে

হারুন উর রশীদ স্বপন : শুধু ঢাকা কেন, এবার সারাদেশেই কোরবানির পশুর হাটে আলোচিত ‘বাংলার বস’ ও ‘বাংলার সম্রাট’৷ বাংলার বস গত বছর দেশের সবচেয়ে বড় ষাড়ের স্বীকৃতি পেয়েছে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর থেকে৷ খবর ডয়চে ভেলের।

গরু দুটিকে তোলা হয়েছে ঢাকার গাবতলি গুরুর হাটে৷ মালিক আজমত আলি গায়েনের অভিযোগ সিন্ডিকেট করে তার গরু বিক্রি করতে দেয়া হচ্ছে না৷ তাই অর্ধেক দাম পেলেও বিক্রি করে দেবেন৷ কিন্তু তাও পাচ্ছেন না৷

বাংলার বসের দাম হেঁকেছেন তিনি ৩০ লাখ টাকা৷ গরুটিতে ৩৭ মণ মাংস আছে বলে দাবি তার৷ আর বাংলার সম্রাটের দাম চান ২৫ লাখ টাকা, মাংস হবে ৩৫ মণ৷ কিন্তু এখন পর্যন্ত অর্ধেক দামেও ক্রেতা পাচ্ছেন না৷ আজমত আলি এখন দুইটি গরু ২৫ লাখ টাকায়ই ছেড়ে দিতে চান৷ তাতে তার সাত-আট লাখ টাকা লোকসান হলেও তিনি আর গরু নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে থাকতে চান না৷

৩৫ বছরের আজমত আলি ঢাকায় রিকশা চালাতেন৷ ২০০৯ সালে কিছু টাকা জমিয়ে গ্রামের বাড়ি যশোরের মনিরামপুরে চলে যান তিনি৷ তারপর সমিতি ও কিছু ব্যবসা করে টাকা জমান৷ গড়ে তোলেন দুধের গাইয়ের খামার৷ পাশাপাশি কোরবানিতে বিক্রির জন্য ষাড় পালন শুরু করেন৷

এবার যে দুইটি গরু ঢাকার গাবতলির হাটে তিনি নিয়ে এসেছেন তা ফ্রিজিয়ান জাতের৷ বাংলার বসকে এক বছরের কিছু সময় আগে ১৬ লাখ টাকায় কেনেন তিনি৷ আর সম্রাটকে কেনেন আরো আগে৷ গাবতলির হাটের মূল ফটকের কাছেই দুইটি গরু তিনি রেখেছেন পাঁচদিন আগে৷ এজন্য তাকে দিতে হচ্ছে ২৫ হাজার টাকা৷ দুইটি গরুর পিছনে এখন পর্যন্ত তার ৪০ লাখ টাকা বিনিয়োগ আছে৷ গত বছর প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর দেশের সবচেয়ে বড় ষাড়ের স্বীকৃতি দেয় বসকে৷ আজমত আলিকে দেয় পুরস্কার৷ তারাই তখন ষাড়টির নাম দেয় ‘বাংলার বস’৷

আরও পড়ুন:  হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন ইউএনও ওয়াহিদা

‘বাংলার বসকে’ ঠেকাতে সিন্ডিকেট?

আজমত আলির অভিযোগ, ‘‘এমনিতেই এবার ক্রেতাদের আগ্রহ কম৷ তার ওপর ঢাকার খামারিরা সিন্ডিকেট করে আমার গরুর ক্রেতাদের ফিরিয়ে দিচ্ছে৷ তাদের লোকজন চারপাশে ঘিরে থাকে৷ তারা বলে দেয় গরু বিক্রি হবে না৷ কেউ যদি তাদের উপেক্ষা করে দাম জানতে আসে, আমি দাম চাইলে সিন্ডিকেটের লোকজন বলে এর অর্ধেক দামে এরচেয়ে বড় গরু আমরা দেব৷ ক্রেতার মন ভেঙে যায়৷ ফিরে যান৷’’

ইজারাদার ও পুলিশের কাছে অভিযোগও করেছেন তিনি৷ কিন্তু তাতেও কাজ হয় না৷ তারা যখন আসে সিন্ডিকেটের লোকজন সরে যায়৷ আজমত আলি বলেন, ‘‘সবাই ছবি তোলে, সেলফি তোলে আমার গরুর সঙ্গে , কিন্তু কেউ কেনে না৷ বিভিন্ন অনলাইনও আমার সাথে কথা না বলেই আমার গরুর ছবি দিয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছে৷’’

ঢাকার বাইরে থেকে আসা আরো কয়েকজন গরুর ব্যাপারি সিন্ডিকেটের অভিযোগ করেন৷ ঢাকার খামারিরা সিন্ডিকেট করে বাইরের গরু বিক্রিতে কৌশলে বাধা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন অনেকে৷ তবে ক্রেতা মনে করেন, এবার বড় এবং বেশি দামের গরুর চাহিদা কম৷ অনেকে কোরবানি দিচ্ছেন না৷ কেউ কেউ কোরবানি দিলেও উৎসব নেই করোনার কারণে৷

ক্রেতা মাসুদুর রহমান বলেন, ‘‘গতবারের চেয়ে এবার আমাদের বাজেট অনেক কম৷ প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে৷’’

গাবতলি গুরুর হাটের ম্যানেজার মো. সানোয়ার হোসেন অবশ্য দাবি করেন, সিন্ডিকেট করে গরু বিক্রিতে বাধা দেয়ার কোনো অভিযোগ তারা এখনো পাননি৷ তবে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেবেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমাদের জানার বাইরে কেউ এরকম কিছু করে থাকলে তো আমাদের কিছু করার নাই৷’’

আরও পড়ুন:  মায়ের কবরে চিরঘুমে সাহারা খাতুন

গরু কম, ক্রেতাও কম

গরুর ব্যাপারিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এবার ঢাকায় গরু এসেছে গতবারের অর্ধেক৷ আর ভারতীয় গরুও হাটে নেই৷ কড়াকড়ির পরও অল্প কিছু গরু চোরাচালানির মাধ্যমে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসলে তা ঢাকা পর্যন্ত আসেনি৷

ঢাকায় এবার মোট ১৯টি গরুর হাট বসেছে৷ এরমধ্যে দক্ষিণ সিটিতে ১২টি এবং উত্তরে ৯টি৷ গরুর ব্যাপারি লালন মিয়া জানান, গতবারের তুলনায় এবার ৫০ ভাগ গরু কম এসেছে৷ তার সঙ্গে অনেক ব্যাপারি এবার আর গরু নিয়ে আসেননি৷ যারা এসেছেন তারাও আতঙ্কে আছেন সব গরু বিক্রি করতে পারবেন কিনা৷ আর দামও ক্রেতারা অনেক কম বলছেন৷

হাটগুলোতে মোবাইল কোর্ট আছে৷ কিন্তু তারপরও সামাজিক দূরত্ব মানার কোনো বালাই নেই৷ আর এটা মানা সম্ভব নয় বলেও জানান কয়েকজন৷ ইজাদারদের পক্ষ থেকে হাত ধোয়া বা হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা দেখা যায়নি৷ কিছু বেসরকারি সংগঠন পশুর হাটে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করেছে৷ তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে মাইকে ঘোষণা চলছে৷আর গরুর হাটে বয়স্ক ও শিশুদের যেতে নিরুৎসাহিত করা হলেও তারা যাচ্ছেন৷

তবে কোনো কোনো ইজারাদার দাবি করেন তারা হাসিল কাউন্টারে ফ্রি মাস্ক ও স্যানিটাইজারারের ব্যবস্থা করেছেন৷ আবার কেউ বলছেন এটা সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্ব৷

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 16
    Shares