প্রচ্ছদ ক্রিকেট প্রকাশ্যে এল রোহিত শর্মার স্ত্রী’র সঙ্গে আনুশকার দ্বন্দ্ব!

প্রকাশ্যে এল রোহিত শর্মার স্ত্রী’র সঙ্গে আনুশকার দ্বন্দ্ব!

39
পড়া যাবে: 4 মিনিটে
advertisement

কথায় আছে এক নারী আরেক নারীকে কখনো সহ্য করতে পারেন না! বাস্তবেও কিন্তু তাই। নারীদের শত্রু নারীরাই! তার আরও একবার প্রমাণ মিলল শনিবার হেডিংলির গ্যালারিতে। ভিআইপি গ্যালারিতে একই সঙ্গে বসেছিলেন বিরাট কোহলির স্ত্রী বলিউড নায়িকা আনুশকা শর্মা ও রোহিত শর্মার স্ত্রী ঋতিকা সাচদে। স্বামীদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখে দুজনের মুখে চওড়া হাসিও ফুটেছিল।

advertisement

কিন্তু ভারতের জয়ও দু’জনের মাঝখানের দূরত্বটা দূর করতে পারল না। বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মার মধ্যে চাপা অন্তর্দ্বন্দ্ব কি মাঠ ছাপিয়ে পরিবারে প্রবেশ করল? ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে গ্যালারির এমন দৃশ্য কিন্তু সে প্রশ্নই ছড়িয়ে দিয়েছে।

এই বিশ্বকাপে দুরন্ত ফর্মে রয়েছেন রোহিত শর্মা। তাঁর ব্যাটে রেকর্ডের ফুলঝুরি। শনিবার শ্রীলঙ্কা ম্যাচেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। মালিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি হাঁকাতেই এক বিশ্বকাপে পাঁচ-পাঁচটি সেঞ্চুরির একমাত্র মালিক হয়ে যান ভারতীয় ক্রিকেটের হিটম্যান। সেই সঙ্গে গ্রুপ পর্বে ৬০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে ভেঙে দেন শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ডও। স্বাভাবিকভাবেই স্বামীর এমন অসামান্য সাফল্যে উচ্ছ্বসিত ঋতিকা।

আরও পড়ুন:  মাঠের মধ্যেই কান্নায় ভেঙে পড়েন গাপটিল

মেয়ে সামাইরাকে সঙ্গে নিয়ে স্বামীর আরও একটি দুর্দান্ত ইনিংস উপভোগ করলেন তিনি। সেসময় গ্যালারিতে তাঁর কয়েক হাত দূরেই বসেছিলেন আনুশকাও। অধিনায়ক হিসেবে কোহলি যেভাবে একের পর এক ম্যাচ জিতে চলেছেন তার জন্য গর্বিত ক্রিকেটের ফার্স্ট লেডিও।

কিন্তু এত কাছাকাছি থাকা সত্ত্বেও পরস্পরের সঙ্গে একবারও কথা বলতে দেখা গেল না আনুশকা ও ঋতিকাকে। তাঁরা একে অন্যের থেকে মুখ ফিরিয়েই রইলেন। টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের স্ত্রীরা যেন পরস্পরকে চেনেনই না! যা চোখ এড়ায়নি ক্রিকেটপ্রেমীদেরও। দুই সুন্দরীর ছবিও ছড়িয়ে পড়ে নেটদুনিয়ায়।

আপাতদৃষ্টিতে কোহলি ও রোহিতের মধ্যে কোনও বিবাদ নেই। সাংবাদিকদের সামনে বা কোনও সাক্ষাৎকারে, একে অন্যের প্রশংসাই করে থাকেন তাঁরা। এমনকী, দিন কয়েক আগে তো অধিনায়ককোহলি অকপটে স্বীকার করে নিয়েছেন, বর্তমান বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান রোহিতই।

আরও পড়ুন:  ক্ষোভে'র বিস্ফোরণ ও পেছনে'র গল্পগু'লো

কিন্তু নেতৃত্ব নিয়ে তাঁদের মধ্যে যে মানসিক দূরত্ব রয়েছে, তা আর গোপন নেই। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে কোহলিকে আনফ্রেন্ড করা রোহিতের সেই চাপা ক্ষোভেরই বহিঃপ্রকাশ ছিল। তাছাড়া সহ-অধিনায়ক হওয়া সত্ত্বেও টিম ম্যানেজমেন্টে যে তাঁর বিশেষ গুরুত্ব নেই, তাও স্পষ্ট। শাস্ত্রী-ধোনি-কোহলির পরামর্শেই সাধারণত সব কাজ হয়ে থাকে।

তবে বিশ্বকাপের মধ্যে কোহলি-রোহিতের সেই ঠান্ডা লড়াই যে গ্যালারিতেও প্রকট হয়ে উঠবে, তা হয়তো অনেকেই অনুমান করতে পারেননি। তাই পরের ম্যাচে মাঠের পাশাপাশি গ্যালারিতেও যে দর্শকদের নজর থাকবে, তা বলাই বাহুল্য।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

advertisement