নার্সিং পেশার আড়ালে ইয়াবা ব্যবসা

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

রাজশাহীর রাজপাড়া থানার ভাটপাড়া মহল্লার আব্দুর রহমান প্রামাণিকের মেয়ে শিখা খাতুন। তিনি নাটোর জেলার চকরামপুরে অবস্থিত নাটোর জেনারেল হাসপাতালের নার্স কাম ম্যানেজার। কিন্তু এই পরিচয়ের বাইরেও এক গোপন পরিচয় আছে তাঁর। আর তা হলো ইয়াবা ব্যবসায়ীর পরিচয়।

নার্সিং পেশার আড়ালে ইয়াবা ব্যবসা চালানো এই নারীকে হাতেনাতে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। গ্রেফতারকৃত নারী ওই হাসপাতালের নার্স কাম ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত।নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার শাহাদাত হোসেন খান জানান, এ ঘটনায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক আলমগীর হোসেন জানান, জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার এনএসআই তথ্যের ভিত্তিতে শনিবার বিকেলে নাটোর জেনারেল হাসপাতালে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় তৃতীয় তলার একটি কক্ষ(ডিউটি রুম) থেকে প্যাকেটে মোড়ানো অবস্থায় ১৯১ পিস ইয়াবা উদ্বার করা হয়। ওই কক্ষে রাতে থাকতেন নার্স শিখা খাতুন৷ তিনি হাসপাতালে থেকেই ইয়াবা বিক্রি করে আসছিলেন। উদ্ধার ইয়াবার আনুমানিক মুল্য ৯৬ হাজার টাকা। 

শনিবার(৫ মার্চ) বিকেলে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার এনএসআই তথ্যের ভিত্তিতে ওই হাসপাতালে অভিযান পরিচালনা করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। অভিযানকালে হাসপাতালে কোন চিকিৎসককে পাওয়া যায়নি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনসুর রহমান বলেন, ‘এ ঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজুর প্রক্রিয়া চলছে।’মাদকের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা গড়ে তোলার লক্ষ্যে যেখান আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী চেষ্টারত আছে সেখানে রোগীর সেবা প্রদানের মত এমন মহান পেশায় নিয়োজিত কারোর ইয়াবার মত ভয়ঙ্কর এক মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার ঘটনা নিঃসন্দেহে পীড়াদায়ক।