ইউক্রেন থেকে ২৮ নাবিক বাংলাদেশে ফিরেছেন

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

ইউক্রেন থেকে ২৮ নাবিক বাংলাদেশে ফিরেছেন। ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে রকেট হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ‘এমভি বাংলার সমৃদ্ধি’র ২৮ নাবিক আজ বুধবার দুপুর ১২টায় দেশে ফেরেন। ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে তাঁদের বহনকারী ফ্লাইটটি।

গত বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা ২০ মিনিটে অলভিয়া বন্দর জেটির অদূরে নোঙর করে রাখা বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের জাহাজ এমভি বাংলার সমৃদ্ধি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার শিকার হয়। জাহাজে গোলার আঘাতে তৃতীয় প্রকৌশলী হাদিসুর রহমান নিহত হন।

হামলার ২৪ ঘণ্টার মাথায় ইউক্রেনপ্রবাসী বাংলাদেশিদের সহায়তায় গত বৃহস্পতিবার নাবিকদের একটি টাগবোটে বন্দরের বাইরে একটি বাংকারে নেওয়া হয়। সেখান থেকে রোমানিয়ায় নেওয়া হয়। রোমানিয়া থেকে ঢাকায় ফিরলেন ২৮ নাবিক।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে বিদেশি একটি ফ্লাইটে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হন নাবিকেরা। গত রোববার বেলা ১১টার দিকে তাঁরা ইউক্রেন সীমান্ত পেরিয়ে মালদোভা হয়ে রোমানিয়া পৌঁছান। এ ছাড়া ইউক্রেনে রাখা জাহাজটির তৃতীয় প্রকৌশলী হাদিসুর রহমানের মরদেহও দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের এই জাহাজ তুরস্কের ইরাগলি বন্দর থেকে পণ্য বোঝাই করতে গত ২১ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরের উদ্দেশে রওনা হয়। দুই দিন পর অলভিয়া বন্দরের জলসীমায় নোঙর করে। পরদিন বৃহস্পতিবার ভোরে রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা করলে জাহাজটি আটকা পড়ে। এক সপ্তাহের মাথায় হামলার শিকার হয়।

বুধবারের হামলার পর এমভি বাংলার সমৃদ্ধি জাহাজে আগুন ধরে যায়। শুরুতে নাবিকেরা আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। অলভিয়া বন্দর থেকে একটি টাগবোট এসে আগুন নেভানোর কাজে অংশ নেয়। নাবিকদের চেষ্টায় জাহাজের আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। হামলায় জাহাজের ব্রিজ ধ্বংস হয়ে গেছে। ধ্বংসস্তূপে নাবিক হাদিসুর রহমানের নিথর দেহ পড়ে ছিল।