সারোগেট মাদার হয়ে নাতনির জন্ম দিতে চলেছেন চ্যালিস স্মিথ

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ২ মাস আগে

আট সন্তানের জননী বছর পঞ্চাশের চ্যালিস স্মিথ তার মেয়ের জন্য সারোগেট মাদার হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং নাতনির জন্ম দিতে চলেছেন। মার্কিন এই প্রৌঢ়া আগামী মে মাসে যে ফুটফুটে শিশুটিকে জন্ম দেবেন সে আসলে তার মেজো মেয়ে কেটলিনের সন্তান। বছর চব্বিশের এই তরুণী ভুগছেন এন্ডোমেট্রিওসিসের মতো জটিল অসুখে।

পাশাপাশি আরও একটি এমন অসুখ রয়েছে তার, যার জেরে এক সন্তানের মা কেটলিনের পক্ষে আর সন্তানধারণ সম্ভব নয়। এই পরিস্থিতিতে মেয়ের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন চ্যালিস। তিনিই হয়েছেন তার মেয়ের সন্তানের ‘সারোগেট’ মা। কেটলিন এবং তার স্বামী মিগুয়েলের বছর দুয়েকের একটি ছেলে আছে। IVF-এর মাধ্যমে গর্ভধারণ করেছিলেন কেটলিন।

গত সেপ্টেম্বরে মেয়ের সন্তানকে গর্ভে ধারণ করেছেন চ্যালিস। মে মাসে ভূমিষ্ঠ হওয়ার কথা তার নাতনির। নিজের আট সন্তানকে বড় করে তোলার পর , চ্যালিস কেটলিনের পরিস্থিতি সম্পর্কে “দীর্ঘ সময় ধরে ভেবেছিলেন”। তারপর সারোগেট মা হওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুতি শুরু করে দেন।

এই সিদ্ধান্ত নেবার আগে অনেক স্বাস্থ্য পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে বলে জানাচ্ছেন বছর পঞ্চাশের চ্যালিস। জীবনের কঠিন সময়ে যেভাবে মা পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন তার জন্য মায়ের প্রতি কৃতজ্ঞ কেটলিন। বাড়িতে কবে খুদে অতিথি আসবে এখন সেই অপেক্ষা করছে এই মার্কিন পরিবারটি।

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন জটিল অসুখে আক্রান্ত হবার দরুণ কেটলিন আর তার পরিবার বাড়াতে সক্ষম নন। নিজের জীবনের কথা বলতে গিয়ে কেটলিন জানিয়েছেন, ”আমি চেষ্টা করেছিলাম দ্বিতীয়বার অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার। কিন্তু কিছুতেই সন্তান আসছিল না।” কেটলিনের মা চ্যালিস জানাচ্ছেন , “আমাকে অনেক চিকিৎসকই বলেছিলেন যে এই বয়সে এসে সন্তান বহন করা নিরাপদ হবে না। আমি বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিলাম। একটি বড় পরিবার আমার স্বপ্ন ছিল, আমি যখন ছোট ছিলাম তখন থেকেই মা হওয়া আমার স্বপ্ন ছিল। কিন্তু যখন দেখলাম আমার মেয়ের সেই সাধ পূর্ণ হবার নয়, তখন এই কঠিন সিদ্ধান্তটা নিয়েই ফেললাম।”