পবিত্র রমজান মাসে ব্যতিক্রম নজির স্থাপন করলেন দুগ্ধ খামারী

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ২ মাস আগে

পবিত্র রমজান মাস এলেই ব্যবসায়ীরা যেখানে জিনিসপত্রের দাম বাড়ানোর প্রতিযোগিতায় লিপ্ত থাকেন, সেখানে ব্যতিক্রমী নজির স্থাপন করেছেন কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের এক খামারি।

উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামে জেসি অ্যাগ্রো ফার্ম নামে তাঁর একটি গরুর খামার রয়েছে। সে খামার থেকে এবার রমজান উপলক্ষে মোট উৎপাদিত দুধের ৫০ ভাগ তিনি ১০ টাকা লিটার বিক্রি করার ঘোষণা দিয়েছেন।

বাংলাদেশ মিলস্কেল রি-প্রসেস অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও জেসি অ্যাগ্রো ফার্মের চেয়ারম্যান এরশাদ উদ্দিন বলেন, শনিবার ১০ টাকা দরে দুধ বিক্রি শুরু করেছেন। পুরো রমজান মাসে প্রায় ১ হাজার লিটার দুধ ১০ টাকা দরে বিক্রি করবেন।

তিনি বলেন, রমজান মাসে সবাই দুধ খেতে চায়। বিশেষ করে সাহ্‌রির সময় এটা অনেকেরই পছন্দের খাবারের তালিকায় থাকে। সে জন্য দুধের দাম বেড়ে যায়। তাই তিনি উদ্যোগ নিয়েছেন, পুরো রমজান মাসে তাঁর খামারের উৎপাদিত দুধের অর্ধেক পরিমাণ তিনি ১০ টাকা দরে বিক্রি করবেন। যে কেউ সে দুধ খামারে এসে কিনে নিতে পারবেন। প্রতিজন সর্বোচ্চ এক লিটার দুধ কিনতে পারবেন।

রমজান মাসের প্রথম থেকে শেষ দিন পর্যন্ত ১০ টাকা লিটার দুধ বিক্রির এ কাজ চলমান থাকবে বলে জানান খামারি এরশাদ উদ্দিন। বাজারে বর্তমানে ৭০ থেকে ৯০ টাকা দরে দুধ বিক্রি হচ্ছে। এরশাদ উদ্দিনের এ উদ্যোগ এলাকায় প্রশংসা কুড়াচ্ছে।

যে কেউ সে দুধ খামারে এসে কিনে নিতে পারবেন। ১০ টাকা দরে প্রতিজন সর্বোচ্চ এক লিটার দুধ কিনতে পারবেন।এরশাদ উদ্দিনের দুধের খামার ছাড়াও শিল্পপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে তিনি এলাকায় সেবামূলক কাজ করছেন। প্রতিষ্ঠা করেছেন স্কুল, কলেজসহ কয়েকটি শিক্ষামূলক প্রতিষ্ঠানও।