রাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গিয়ে গণ ধর্ষণের শিকার, দুজন গ্রেপ্তার

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ২ মাস আগে

অসুস্থ স্বামীর ডায়ালিসিস করে ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরে শুনলেন মেয়েকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে। মার মাথায় যেন আকাশ ভেঙে পড়ল। এমনিতেই স্বামীকে বাঁচাতে স্রোতের মতো টাকা যাচ্ছে, যে টাকা জোগার করতে দিশেহারা তিনি। এর মাঝেই আবার শুনলেন মেয়ের গণধর্ষণের খবর।

পাবনা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান-এর নির্দেশনায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মো. মাসুদুর রহমান এর তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় ৫ এপ্রিল রাত ১টা থেকে ২টার মধ্যে সুজানগর থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।  

সুজানগর থানার ওসি আব্দুল হান্নান জানান, বাদী তাঁর স্বামীর স্বামীর কিডনি ডায়ালিসিস শেষে ঢাকা থেকে ৪ এপ্রিল সন্ধায় বাড়িতে আসলে মেয়ে তার মাকে ধর্ষণের কথা বলে। মেয়ের মুখে বিস্তারিত জানার পর মা ৪ এপ্রিল রাত সাড়ে ১১টায় থানায় এসে অভিযোগ দিলে আমি নিজে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত)-সহ অভিযানে গিয়ে আসামি গ্রেপ্তার করি।

জানা যায়, গত ২৮ মার্চ রাতে বাদী তাঁর স্বামীর ডায়ালিসিসের জন্য ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। ভিকটিম রাতের খাওয়া শেষে চাচাতো ছোট বোনকে সঙ্গে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। গভীর রাতে ভিকটিম বাড়ির পাশে টয়লেটে যাওয়ার সময় আসামিদ্বয় তার মুখ গামছা চেপে গ্রামের একটি বাড়ির পাশে জঙ্গলে নিয়ে ভয় দেখিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

অভিযুক্তরা হলেন, নওয়াগ্রামের মৃত ইসমাইল সরদারের ছেলে মো. জিয়া সরদার (৩৮) ও মহনপুর গ্রামের আমদ আলী সেখের ছেলে মো. ওয়াজেদ আলী শেখ। পুলিশ আসামিদের আদালতে সোপর্দ করেছে।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!